fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

মহারাষ্ট্রের পর মেঘালয়, ৩ মে’র পরেও রাজ্যে জারি থাকবে লকডাউন, জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্কঃ গোটা দেশে চলছে দ্বিতীয় দফার লকডাউন। আগামী ৩ মে এই মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু মেয়াদ শেষের আগেই তাই ফের একবার বিশেষ বৈঠকে প্রত্যেক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এদিন বৈঠকে জিজ্ঞাসা করা হয় লকডাউন ওঠানোর পক্ষে কোন কোন রাজ্যের মত রয়েছে। মেঘালয় এবং হিমাচল প্রদেশ ছাড়া প্রায় সব রাজ্যই সমর্থন জানিয়েছেন লকডাউন তুলে নেওয়ার। সময়ের অভাবে ৯ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে এদিন নিজেদের বক্তব্য রাখার সুযোগ দেওয়া হয়। মেঘালয়, মিজোরাম, পদুচেরি, উত্তরাখণ্ড, হিমাচল প্রদেশ, ওডিশা, বিহার, গুজরাট এবং হরিয়ানা ছাড়া বাকি সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে বলা হয়েছে তাঁদের মতামত লিখিতভাবে জানাতে। তবে জানা গিয়েছে, মেঘালয় মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন ৩ মে-র পরেও তাঁর রাজ্যে লকডাউন জারি থাকবে।

জানা গিয়েছে, আন্তঃরাজ্য এবং আন্তঃজেলা চলাফেরার উপরও থাকবে নিষেধাজ্ঞা। তবে এর থেকে বাদ রাখা হবে গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা এবং মেডিক্যাল ইমার্জেন্সির কারণে সফর। মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাংগা জানান, কেন্দ্র যা সিদ্ধান্ত নেবে তাই মেনে নেওয়া হবে। অন্যদিকে পদুচেরির মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন ৩ মে-র পর থেকে রাজ্যে শিল্পী ও কারখানা চালু করার। একই সঙ্গে কেন্দ্রের কাছ থেকে আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি পিপিই সরবরাহের অনুরোধও করেছে। এদিন উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত জানিয়েছেন, ব্যবসা বাণিজ্য ধাপে ধাপে চালু করা উচিত সব দিক বিচার করে। মানুষের দৈনন্দিন জীবনে স্বাভাবিক করার দিকেই পদক্ষেপ করা উচিত বলে তিনি জানান। একই সঙ্গে বলেন নজর দিতে হবে অর্থনৈতিক উন্নতির দিকেও।

হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর জানিয়েছেন, যদিও রাজ্য সরকার অর্থনৈতিক কাজকর্ম শুরু করার অবস্থায় রয়েছে, তবুও লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি করা উচিত। বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নিতিশ কুমার অবশ্য জানিয়েছেন ৩ মে পর্যন্ত রাজ্য জারি থাকবে লকডাউন। একই সঙ্গে বলেন, রাজ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে ডোর টু ডোর স্ক্রিনিং। এখনও পর্যন্ত ৪ কোটি মানুষের স্ক্রিনিং টেস্ট হয়েছে। এর পাশাপাশি ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক অবশ্য বলেছেন লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি করার পক্ষেই তাঁর মত। কিন্তু একই সঙ্গে অর্থনীতির গতি বাড়ানোর দিকেও কেন্দ্রকে নজর দিতে অনুরোধ করেন তিনি।

Related Articles

Back to top button
Close