fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিহারের পরই বাংলা জয়, লাদাখের সাফল্যে মিষ্টি বিতরণ নদিয়ায়

শ্যামল কান্তি বিশ্বাস, কৃষ্ণনগর : বুধবার বিহারে প্রথম দফার নির্বাচন। বিজেপি ও নীতীশ কুমারের দলের অর্থাৎ এনডিএ জোটের সরকার গঠন নিশ্চিত বলে প্রচন্ড আশাবাদী রাজ্য বিজেপি। শারদীয়া ও দীপাবলির বড়ো প্রাপ্তি বিজেপির লাদাখ বিজয়। ৩৭০ ধারার বিলোপকে যে তারা স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে সমর্থন করেছেন, তারই সম্মতি মিললো সদ্য প্রকাশিত নির্বাচনী ফলাফলে মধ্যে। এমনটাই অভিমত সাংসদ জগন্নাথ সরকারের।

গত ২৩ শে অক্টোবর লাদাখে ভোট হয়। লাদাখ স্বায়ত্ব পার্বত্য উন্নয়ণ পরিষদের মোট আসন সংখ্যা-২৬। সব কটি কেন্দ্রেই বিজেপি এবং কংগ্ৰেস দল প্রার্থী দিয়েছিল, আম আদমি পার্টি প্রার্থী দিয়েছিল ১৯ টি আসনে এবং নির্দল প্রার্থী ছিল ২৩ টি আসনে। ৫৪ হাজার ভোটদাতা, ভোটদান প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করেন। সদ্য প্রকাশিত ফলাফলে খুশি বিজেপি নেতৃত্ব। ভোটের ফলাফল-বিজেপি  ১৫ আসন পেয়ে একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসাবে শাসন ক্ষমতায় আসীন হতে চলেছে।কংগ্ৰেস পেয়েছে ৯ টি আসন এবং নির্দল ২ আসন পেয়েছে।

আরও পড়ুন: বায়ুসেনার শক্তি বাড়াতে ফ্রান্স থেকে আরও ১৬টি যুদ্ধবিমান আসছে ভারতে

বিহার রাজ্যে নির্বাচনের আগে এর থেকে ভালো বার্তা দ্বিতীয় কিছু হতে পারেনা বলে অভিমত ৩৮ নং জেড,পির অন্যতম বিজেপির বর্ষিয়ান জননেতা এক্স ডি,সি(সীমান্ত রক্ষী বাহিনী) সুনীল কুমার বিশ্বাসের।দলের অভাবনীয় সাফল্যে সুনীল বাবুর নেতৃত্বে এলাকার মিষ্টি বিতরণ করা হয়। ৮৮নং কৃষ্ণগজ্ঞ সংরক্ষিত বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক আশীষ কুমার বিশ্বাস,লাদাখের এই জয়কে দলের নেতা-কর্মীদের কাছে  শারদীয় এবং দীপাবলি উৎসবের সেরা উপহার হিসাবে দাবী করেছেন।

ফলাফলে স্বভাবতই খুশি বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব। কৃষান মোর্চার রাজ্য সভাপতি মহাদেব সরকার এই ঘটনার প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে বলেন,এই জয়ে সাংগঠনিক স্তরে কর্মীদের মনোবল ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেল।বিহারের পর বাংলা জয়, শুধু সময়ের অপেক্ষা। বিজেপি সংখ্যালঘু সেলের রাজ্য সহসভাপতি কাশেম আলী বলেন, সীমাহীন অত্যাচার সহ দূর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত রাজ্যের শাসক দল তৃনমূলের প্রতি রাজ্য বাসীর আস্থা, ভরসা কিছুই নেই এবং এক ই অবস্থা সমগ্ৰ দেশব্যাপী।তার ই প্রভাব সহ কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের যথার্থ মূল্যায়ন লাদাখের এই নির্বাচনী ফলাফল। সংশ্লিষ্ট এলাকার জনগন স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে বিজেপির নীতিকে সমর্থন করেছে এবং তার ই প্রতিফলন নির্বাচনী ফলাফলের মাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে।

 

 

রাজ্যের মানুষ শাসক তৃণমূলের প্রতি বিতশ্রদ্ধ সহ তিতিবিরক্ত হলেও বিজেপি সর্ববৃহৎ গণতান্ত্রিক দল, আমরা গণতন্ত্রের উপর বিশ্বাস রাখি,হাজারো কষ্ট হলেও রাজ্যের বিধানসভার নির্ধারিত সময় এবং মেয়াদ পর্যন্ত অপেক্ষা করতেই হবে।তাই রাজ্যের মানুষ অপেক্ষা করছেন, বাহ্যিক ভাবে প্রকাশ না পেলেও বিজয়া দশমীতে দূর্গা মা কে বিসর্জনের সঙ্গে সঙ্গে তৃনমূল দলটা কেও বিসর্জন দিয়ে দিয়েছে, বাংলার মানুষ এদের হাত থেকে মুক্তি ও নিস্তার চাইছে।ফলে প্রকৃতির নিয়মেই তৃনমূল কে ক্ষমতা থেকে সরে যেতে হবে। সাংসদ জগন্নাথ সরকার ঘটনার প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে আরো বলেন,লাদাখের ফলাফল অত্যন্ত সন্তোষজনক,দল এখন ভীষন ভাবে চাঙ্গা, উত্তেজনায় টকবক করছে,বিহারে পূনরায় বিজেপি ক্ষমতায় আসছে এবং পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতা দখল শুধু সময়ের অপেক্ষা।

 

Related Articles

Back to top button
Close