fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খদেশ

দিল্লির পর শাহজাহানপুর, আদালতে চলল গুলি, খুন আইনজীবী

নিজস্ব প্রতিনিধি: দিল্লির রোহিণী আদালত কক্ষের মধ্যে গুলি চলার স্মৃতি এখনও সবার টাটকা। সেই রেশ কাটার আগে ফের একই ঘটনা ঘটল উত্তরপ্রদেশের শাহজাহানপুরে। আদালতে  দুষ্কৃতীদের গুলিতে প্রাণ হারালেন এক আইনজীবী। তবে কী কারণে তাঁকে খুন করা হয়েছে, তা এখনও স্পষ্ট নয়। এই ঘটনায় রাজ্যের আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি নিয়ে যোগী আদিত্যনাথের সরকারের দিকে আঙুল তুলেছে কংগ্রেস। যদিও খুনের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুরনো শত্রুতার জেরেই এই খুন বলে দাবি পুলিশের।

মৃত আইনজীবীর নাম ভূপেন্দ্র সিং। তিনি শাহজাহানপুরেরই বাসিন্দা। সোমবার শাহজাহানপুরের জেলা আদালতের তিনতলায় তাঁর দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। পাশেই একটা দেশি পিস্তল পড়েছিল। ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে আসে পুলিশ। বিষয়টি নিয়ে শাহজাহানপুরের পুলিশ সুপার এস আনন্দ জানান, “প্রাথমিক খবর অনুযায়ী, মৃত্যুর সময় ওই ব্যক্তি একাই ছিলেন। তাঁর আশপাশে কেউ ছিল না। গুলি চালাতেও কেউ দেখেননি। ফরেনসিক দল তদন্তে নেমেছে।”

আদালতের অন্যান্য আইনজীবীরা জানিয়েছেন, “আমরা হঠাৎই খবর পেলাম আদালতের মধ্যেই একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এসে দেখি রক্তে ভেসে যাচ্ছে মাটি। ওই আইনজীবীর গুলিবিদ্ধ দেহ পড়ে রয়েছে। পাশে পড়ে রয়েছে একটি দেশি পিস্তল।”

জানা গিয়েছে ভূপেন্দ্র সিং আগে ব্যাঙ্কে কাজ করতেন। গত ৪-৫ বছর ধরে আইনজীবী হিসেবে কাজ করছেন ওই আদালতে। স্বাভাবিকভাবেই এই খুনের ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে আদালতে। যথারীতি

এই ঘটনা নিয়ে সরব হয়েছে কংগ্রেস। দলীয় মুখপাত্র শামা মহম্মদ টুইটারে লেখেন, “শাহজাহানপুরের আদালতে এক আইনজীবীকে খুন করা হল। উত্তরপ্রদেশের পুলিশ রাতের অভিযানে এক ব্যবসায়ীকে মারল। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর ছেলে কৃষকদের গাড়ি চাপা দিল। এটাই উত্তরপ্রদেশে যোগী রাজত্বে আইনশৃঙ্খলার নমুনা। অবশ্য যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধেই দশটি মামলা রয়েছে।”

Related Articles

Back to top button
Close