fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দুর্গাপুজোর পর এবার কালীপুজোতেও পুজো মণ্ডপকে দর্শক শূন্য রাখার নির্দেশ হাইকোর্টের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা অতিমারীর পরিস্থিতিতে দুর্গাপুজোর পর এবার কালী পুজোতেও পুজো মণ্ডপকে দর্শক শূন্য রাখার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা করে দুর্গাপুজোর পর বাকি উৎসবগুলোতেও নির্দিষ্ট গাইডলাইনের জন্য আদালতের হস্তক্ষেপ চেয়ে হাওড়ার বাসিন্দা অজয় কুমারদে’র জনস্বার্থ মামলায় বৃহস্পতিবার এই নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্টের বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিচারপতি মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ।

এবার কালীপুজোর মণ্ডপে নো এন্ট্রি নির্দেশ স্পষ্ট করে ডিভিশন বেঞ্চে জানিয়েছে, ৩০০ বর্গ মিটারের কম মণ্ডপের ৫ মিটার দূরে নো এন্ট্রি বোর্ড। তার থেকে বড় আকৃতির পুজো মণ্ডপের ক্ষেত্রে দূরত্ব করা হয়েছে ১০ মিটার।একসঙ্গে আদালত জানিয়েছে, ৩০০ বর্গমিটারের মধ্যে পুজোমণ্ডপের ক্ষেত্রে ১০ জন মণ্ডপের মধ্যে থাকতে পারবে। ৩০০ বর্গমিটার বড় মণ্ডপের ক্ষেত্রে একইসঙ্গে ৪৫ জন ঢুকবে। মণ্ডপ থেকে ৫ মিটারের দূরত্বের মধ্যে ঢাকিরা থাকতে পারবে।

এছাড়াও আদালত স্পষ্ট জানিয়েছে, সামাজিক দূরত্ব মানতে হবে। বাধ্যতামূলক করতে হবে স্যানিটাইজার, মাস্কও।
একইসঙ্গে কালীঘাট, দক্ষিণেশ্বর, তারাপীঠ, আসানসোল কল্যাণেশ্বরী মতন জনসমাগমের মন্দিরগুলিতেও ভিড় নিয়ন্ত্রণ করতে হবে বলে স্পষ্ট নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ।

আরও পড়ুন: ফ্রান্স নিয়ে সংখ্যালঘুদের উস্কানোর জের, কংগ্রেস কাউন্সিলর সহ সাতজনের বিরুদ্ধে দায়ের মামলা

এদিন দুর্গাপুজোর ক্ষেত্রে পুলিশের ভূয়ষী প্রশংসা করে ডিভিশন বেঞ্চে মন্তব্য, ‘দুর্গাপূজার ক্ষেত্রে খুব সুন্দর কাজ করেছে পুলিশ। তাদের ওপর আদালতের আস্থা রয়েছে ভিড় নিয়ন্ত্রণের। পুলিশই ঠিক করবে কোভিড বিধি মেনে ওই মন্দিরগুলির ক্ষেত্রে কীভাবে ভিড় নিয়ন্ত্রণ ও একসঙ্গে কতজন মন্দিরে প্রবেশ করবে।’
এই মামলায় শুধু কালীপুজোয় নয়। কালীপুজোর পাশাপাশি জগদ্ধাত্রী, কার্তিকপুজোর ক্ষেত্রেও একই নির্দেশ রাখতে চায় আদালত।

Related Articles

Back to top button
Close