fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

প্রায় তিনমাস বন্ধ থাকার পরে আনলক -১ এ খুললো মাইথন, চলছে স্যানিটাইজেশন

শুভেন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়, আসানসোল: চতুর্থ দফার লকডাউন শেষে মে মাসে রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারের তরফে বলা হয়েছিলো আনলক-১ এ খোলা হবে পর্যটন কেন্দ্র, হোটেল ও রেস্তোরাঁর মতো বিনোদন। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের সেই নির্দেশমতো সোমবার ৮ জুন খুললো বাংলার অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র মাইথন। সেই মার্চ মাস থেকে লক ডাউনের কারণে  মাইথনের বিভিন্ন দোকান, হোটেল, নৌকাবিহার সহ সবকিছুই বন্ধ ছিল। যে কারণে নিদারুণ কষ্টের মধ্যে ছিলেন এইসবের সঙ্গে যুক্ত ব্যবসায়ীরা।

কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের নির্দেশ মতো মাইথন  খোলায় খুশি হয়েছেন সেই সমস্ত ব্যবসায়ীরা।  কারণ এখানে আসা পর্যটকরাই তাদের ভরসা।  তাদের ব্যাবসা চলে এই জায়গায়।

তবে তাদের আশঙ্কা, করোনার সংক্রমণ কমেনি। বরং বেড়েই চলেছে। এই অবস্থায়  পর্যটকরা আসবেন তো এই মাইথনে?

তবুও আশায় সরকারি নির্দেশ পাওয়ার পরে এদিন মাইথনের হোটেল, দোকান থেকে নৌকা সব ভালো করে পরিষ্কার করা হয়। সব হোটেল ও দোকানের চত্বর স্যানিটাইজেশন করা হয়।

এই নিয়ে কল্যানেশ্বরী হোটেল অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক মনোজ তেওয়ারি বলেন, সরকারি নির্দেশ মতো পর্যটকরা হোটেলে থাকার জন্য রুম বুকিং করে, তাহলে পুরো সাবধানতার সঙ্গে  তাদের রুম দেওয়া হবে। তাদের শরীরের তাপমাত্রা থার্মাল স্ক্রিনিং দিয়ে পরীক্ষা করা হবে। স্যানিটাইজেশন করে, পরিচয় পত্র সহ যাবতীয় তথ্য নিয়ে ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে তাদের হোটেল রুম দেওয়া হবে।

মাইথনের নৌকার মাঝি মহঃ আনসারি বলেন, এই বছরের প্রথম থেকে নৌকা বিহারের ব্যবসা ঠিক মতো হয়নি। তার উপর লকডাউনের কারণে এতদিন ধরে নৌকা বন্ধ ছিলো। খুব কষ্টের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে নৌকার মাঝিরা।  সরকারের নির্দেশে মাইথন পর্যটন কেন্দ্র  খোলা হচ্ছে৷ তাই নৌকা বিহারের পুরো এলাকা পরিস্কার করেছি। সরকারের নির্দেশ মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, স্যানিটাইজেশন করা ও মুখে মাস্ক পরা সব কিছুই করা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close