fbpx
দেশহেডলাইন

রাজস্থানের পর পঞ্জাবে! অমরিন্দরের মানসিক ভারসাম্য নিয়ে প্রশ্ন তুললেন কংগ্রেস সাংসদ

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: রাজস্থানের পর পঞ্জাবেও প্রকাশ্যে কাজিয়া, অমরিন্দরের মানসিক ভারসাম্য নিয়ে প্রশ্ন তুললেন কংগ্রেস সাংসদ। মধ্যপ্রদেশে দলীয় কোন্দলে সরকার আগেই হাতছাড়া হয়েছে কংগ্রেসের। কর্ণাটকেও জোট সরকার ভেঙে গিয়েছে। রাজস্থান পরিস্থিতিও খুব একটা সুখকর নয়। মরু রাজ্যে দলীয় সংকট বহু কষ্টে সামলানো গিয়েছে। এর মধ্যেই পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দ সিং-এর বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মুখ খুলতে দেখা যাচ্ছে দলেরই দুই সাংসদকে। বিষ মদকাণ্ডে দলীয় নেতাদের প্রশ্নের চাপে মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ‌ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং। বুধবার এই মন্তব্য করেন কংগ্রেস সাংসদ প্রতাপ সিং বাজওয়া। বুধবার বাজওয়া এবং কংগ্রেসের রাজ্যসভা সাংসদ শামশের সিং দুল্লো রাজ্যে বিষ মদে ১২১জনের মৃত্যুর ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে তোপ দাগেন।

এপ্রসঙ্গে বছর দুয়েক আগে দশেরায় পাঞ্জাবে ঘটনা ট্রেন দুর্ঘটনার এবং তার পরবর্তী তদন্তের কথাও উল্লেখ করে বাজওয়া বলেছেন, দুবছর আগে যে ট্রেন দুর্ঘটনায় রাজ্যে ৬০জনের মৃত্যু হয়েছিল তার তদন্তে সিট গঠিত হয়েছিল। কিন্তু কোনও লাভ হয়নি। এবারও বিষ মদকাণ্ডে জলন্ধর কমিশন নামে সিট গঠিত হয়েছে। কিন্তু যেখানে আবগারি দফতর মুখ্যমন্ত্রীর হাতে এবং রাজ্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার কারণে পুলিশও মুখ্যমন্ত্রীর আওতাধীন, সেখানে এই সিট কতদূর নিরপেক্ষ ভাবে কাজ করতে পারবে সেব্যাপারেই বুধবার মুখ্যমন্ত্রীকে প্রশ্ন করেন বাজওয়া এবং দুল্লো। রাজ্যপালের কাছে তাঁরা এব্যাপারে স্মারকলিপি জমা দিয়ে প্রস্তাব দিয়েছেন এই তদন্ত ইডি বা সিবিআই-কে দিয়ে করানো উচিত।

আরও পড়ুন: অশোক গেহলট সরকারের বিরুদ্ধে শুক্রবার বিধানসভায় অনাস্থা প্রস্তাব আনতে চলেছে বিজেপি

বাজওয়ার কটাক্ষ, ‘‌এতেই ‌ক্যাপ্টেন সাহেব মানসিক ভারসাম্য হারান এবং এখন উনি এমন একটা স্তরে যে আমার পুলিশি নিরাপত্তাও সরিয়ে নিয়েছেন। আমি ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং-কে জিজ্ঞেস করতে চাই, উনি কি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেন। আপনি গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী এবং পাতিয়ালার মহারাজা নন।’ তিনি বলেন, ” আমি এবং শামশের সিং দিল্লো বিষ মদ কাণ্ডে ১২১ জনের মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন তোলায় ক্যাপ্টেন সাহেবের মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে, কারণ ওনার দলের সাংসদরাই এবার ওনাকে প্রশ্ন করছে।”

প্রসঙ্গত, বাজওয়ার পুলিশ নিরাপত্তা প্রত্যাহারের কারণ হিসেবে চণ্ডীগড়ের ডিজিপি বলেছেন, তাঁর কিছু হলে সেই দায়িত্ব ‌মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং স্বয়ং এবং পাঞ্জাবের ডিজিপি দিনকর গুপ্তার থাকবে। ডিজিপির পাশে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী বাজওয়াকে বলেন, তাঁর কোনও বিষয়ে মতভেদ থাকলে হয় মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখতে অথবা রাজ্য সরকারের কোনও ব্যাপারে মতভেদ থাকলে তা দলীয় হাই কম্যান্ডকে জানানো উচিত বাজওয়ার।

 

Related Articles

Back to top button
Close