fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চেন্নাই থেকে ফিরে চরম হয়রানির মুখে ,নিজের গ্রামে ঢুকতে পারলেন না চার শ্রমিক

শুভেন্দু বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল: তামিলনাডুর চেন্নাই থেকে বাংলায় ফিরে ঘরের কাছে এসেও চূড়ান্ত হয়রানির শিকার হলো চার পরিযায়ী শ্রমিক। অনেকটা সময় পেরিয়ে ক্লান্ত চার শ্রমিকের শেষ পর্যন্ত ঠাঁই হলো আসানসোলের সালানপুর ব্লকের রূপনারায়ণপুর আইটিআইয়ের কোয়ারান্টাইন সেন্টারে।  জানা গেছে, সালানপুর ব্লকের উত্তররামপুর জিৎপুর পঞ্চায়েতের ঘিয়াডোবা গ্রামের চার জন সুরেশ হেমব্রম, সাহেব লাল সোরেন, বিজয় হাঁসদা ও রবিসেন মুর্মু কাজ করতেন তামিলনাড়ুর চেন্নাইয়ে এক ঠিকাদারের অধীনে । ওই ঠিকাদারের হয়ে একটি নামী কোম্পানিতে সেন্টারিং মিস্ত্রির কাজ করতেন তারা।

গত মার্চ মাসে লকডাউন হওয়ার পর সেখানেই ছিলেন তারা। ২ জুন ওই ঠিকাদার চারজনর হাতে কিছু টাকা ধরিয়ে একটি বাসে তুলে দেয়। তারপর সেখান থেকে ট্রেনে তারা বর্ধমান স্টেশনে নামেন ৪ জুন। বর্ধমান থেকে চারজন বাসে করে আসানসোলে আসে পরের দিন ৫ জুন । আসানসোল থেকে তারা একটি অটো-রিক্সা ভাড়া করে গ্রামে আসেন। কিন্তু নিজের গ্রামে ঢোকার সময়ই শুরু হয় সমস্যা। অন্য রাজ্য থেকে আসায় তাদেরকে গ্রামে থাকতে দিতে রাজি হন না প্রতিবেশীরা। কারন তারা ডাক্তারি পরীক্ষা করে গ্রামে আসেনি। তাদের কাছে সরকারি কোন কাগজ নেই।

আরও পড়ুন: দুর্ভাগ্যজনক! রাজ্যের বিপদের সময়ে রাজনীতি হচ্ছে: নারী শিশু কল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজা

তারা জানতে পারেন, কল্যানগ্রামের নীললোহিত কমিউনিটি হলে কোয়ারান্টাইন সেন্টার করা হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। তারা সেখানে যায়। কিন্তু তাদের সঙ্গে স্বাস্থ্য পরীক্ষার কাগজ না থাকায়, সেখানেও তারা ঢুকতে বাধা পায় । তাদেরকে বলা হয়, আসানসোলের সেনরেল রোডের যে বেসরকারি হাসপাতাল স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নির্দিষ্ট করা আছে, সেখানে গিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে আসতে। কিন্তু শ্রমিকরা জানান, তাদের কাছে এক টাকাও নেই। তাই আসানসোলের ঐ হাসপাতালে হেঁটে যাওয়া ছাড়া উপায় নেই। যা তাদের পক্ষে কার্যত অসম্ভব। বাধ্য হয়ে অসহায় ক্লান্ত ঐ চার শ্রমিক গ্রামের বাইরে পুকুর পাড়ে গাছতলায় আশ্রয় নেয়। তখন গ্রামবাসীরা চাঁদা তুলে তাদের হাসপাতালে পাঠানোর উদ্যোগ নেন। কিন্তু কোনও গাড়ি তাদের নিয়ে যেতে রাজি না হওয়ায়, সমস্যা আরও বেড়ে যায়। অগত্যা পুকুর পাড়েই তারা বসে থাকেন।

শনিবার সকালে গাছতলায় চার জনকে বসে থাকতে দেখে স্থানীয় কিছু মানুষের থেকে খবর পেয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করার আশ্বাস দেন রূপনারায়ণপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ। শেষপর্যন্ত দুপুর আড়াইটা নাগাদ পুলিশ ওই শ্রমিকদের রূপনারায়ণপুর আইটিআইয়ের কোয়ারান্টাইন সেন্টারে থাকার ব্যবস্থা করা হয়। মঙ্গলবার তাদের লালারসের নমুনা করোনা পরীক্ষার জন্য সংগ্রহ করা হবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।

Related Articles

Back to top button
Close