fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সুস্থ হয়েও বাড়ি ফেরা হল না, গ্রামবাসীদের প্রবল বাধায় ফের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ঠাঁই মুম্বই ফেরত যুবকের

শুভেন্দু বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল: হাসপাতালে চিকিৎসার পরে সুস্থ হয়েও বাড়ি ফেরা হলো না জামুড়িয়ার এক যুবকের। গ্রামবাসীদের প্রবল বাধার মুখে পড়ে কোয়ারান্টাইন সেন্টারেই ফিরে যেতে হলো ঐ যুবককে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে আসানসোলের জামুড়িয়ার বাগডিহা গ্রামে।

জানা গেছে, কয়েকদিন আগেই এক যুবক মুম্বাই থেকে বাগডিহা গ্রামে ফিরেছিলো। ঐ গ্রামে তার শ্বশুরবাড়ি। জামুড়িয়ার আসার দিন পাঁচেক পরে ব্লক প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দপ্তরের দুটি অ্যাম্বুলেন্স গ্রামে আসে। স্বাস্থ্য কর্মীরা ঐ যুবককে নিয়ে চলে যায়। স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, মুম্বাই ফেরত ঐ যুবক যখন আসে বাংলা ঝাড়খণ্ড সীমান্তে ডুবুরডিহি চেকপোস্টে তা লালারস নিয়ে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিলো। পরীক্ষার রিপোর্টে জানা যায় সে করোনায় আক্রান্ত । তারপরেই যুবককে দূর্গাপুরের কোভিড ১৯ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। একইসঙ্গে পরিবারের সবাইকে নিয়ে যাওয়া হয় আসানসোলের কোয়ারান্টাইন সেন্টারে। এরপর সেই খবর জামুড়িয়ার গ্রামে গ্রামে খবর ছড়িয়ে পড়ে । সেই খবরে আরো চাঞ্চল্য ছড়ায়। স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, এই ঘটনার পরে  সিদ্ধপুর ও বাগডিহা গ্রামের মানুষদেরকে অঘোষিত সামাজিক বয়কট করা হয় । তারা আরও বলেন, আমরা অন্য গ্রামে যেতে পারছি না।

এরইমধ্যে সোমবার রাতের অন্য একটি ঘটনায় আরো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। জানা যায়, রাতে ঐ যুবককে একটি অ্যাম্বুলেন্স গ্রামে নামিয়ে দিয়ে যায়। হাসপাতালে চিকিৎসায় করোনা আক্রান্ত ঐ যুবক সুস্থ হয়ে যাওয়ার পরেই ব্লক প্রশাসনের তরফে তাকে পাঠানো হয়। কিন্তু যুবক ফিরে আসায় গ্রামের মানুষ ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। ওই যুবককে কার্যত গ্রাম ছাড়া করতে বাধ্য করা হয়। ব্লক প্রশাসনের কাছে এই খবর যাওয়ার পরেই তাকে আবার অ্যাম্বুলেন্সে করে আসানসোলের কোয়ারান্টাইন সেন্টারে নিয়ে এসে রাখা হয়।

জামুড়িয়া ব্লক প্রশাসনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, অপ্রীতিকর এই ঘটনা এড়াতেই ঐ যুবককে গ্রাম থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। জামুড়িয়ার বিডিও কৃশানু রায় বলেন, ব্লক প্রশাসনের পক্ষ থেকে এলাকায় মাইকিং করে প্রচার করা হবে। জামুড়িয়ার ঐ এলাকা যে আপাততঃ করোনা মুক্ত জানানো হবে।

Related Articles

Back to top button
Close