fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দু’মাস চিকিৎসার পর করোনা মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরলেন রেলের কর্মী

পাপ্পা গুহ, উলুবেড়িয়া: করোনা চিকিৎসায় আবার সাফল্যের নজির রাজ্যের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। প্রায় দেড় মাস নন ইনেভেসিভ ভেন্টিলেশনে থাকার পর সোমবার ফুলেশ্বর সঞ্জীবন হাসপাতাল থেকে করোনা মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরলেন এক ব্যক্তি। আর দুই মাস হাসপাতালে অত্যন্ত সঙ্কটজনক অবস্থায় আসা করোনা আক্রান্ত রুগীকে করোনা মুক্ত করে বাড়ি পাঠাতে পারায় খুশী
ফুলেশ্বরের অন্যতম কোভিড হাসপাতালের চিকিৎসকরা। আর করোনা আবহাওয়ায় নিজের প্রাণ ফিরে পাওয়ায় খুশী করোনা জয়ী এই ব্যক্তি।

জানা যায়, গত ১৮ ই জুন উত্তর ২৪ পরগনার নাটাগড়ের বাসিন্দা রেলের কর্মী মানস কুমার মজুমদার করোনা আক্রান্ত হয়ে অতন্ত সঙ্কটজনক অবস্থায় ফুলেশ্বরের সঞ্জীবন হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসকদের বক্তব্য মানসবাবু যখন করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে আসনে তখন উনি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়া ছাড়াও তার অক্সিজেনের মাত্রা ৮০ শতাংশে নেমে গিয়েছিল এবং ওনার প্রচন্ড শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। চিকিৎসকদের মতে মানসবাবু যখন হাসপাতালে এসেছিলেন তখন আমরাও ভাবতে পারিনি ওনাকে সুস্থ করে বাড়ি পাঠাতো পারব। মানুস মজুমদারকে করোনা মুক্ত করে বাড়ি ফেরৎ পাঠাতে পারা সর্ম্পকে ফুলেশ্বর সঞ্জীবন হাসপাতালে কর্নধার ডাঃ শুভাশিষ মিত্র জানান করোনা আক্রান্ত ওই ব্যাক্তি সঙ্কটজনক অবস্থায় হাসপাতালে আসার পরেই হাসপাতালের ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটের মেডিকেল টিম ওনাকে নন ইনভেসিভ ভেন্টিলেশন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

আর তারপর দীর্ঘ দেড়মাস উনি নন ইনভেসিভ ভেন্টিলেশনে থাকার পর আরও ১৫ দিন চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষনে থাকার পর সোমবার ওনাকে হাসপাতালে থেকে ছাড়া হয়। ডাঃ শুভাশিষ মিত্র জানান করোনা মোকাবিলায় প্রথম দিন থেকে বিভিন্ন করোনা আক্রান্ত রুগী চিকিৎসা করা হলেও এই ধরনের রুগীকে করোনা মুক্ত হয়ে বাড়ি ফেরৎ পাঠাতে পেরে খুশী আমরা। অন্যদিকে নতুনভাবে প্রাণ ফিরে পাওয়ায় খুশী মানস কুমার মজুমদার। তিনি জানান চিকিৎসকেরা অসম্ভবকে সম্ভব করে তুলে আমাকে নতুন জীবন দিয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close