fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণদেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কৃষক বিলের বিরোধিতায় দেশের প্রতিটি রাজ্যের রাজধানীতে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে কংগ্রেস

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: কেন্দ্রের কৃষক ও মজদুর বিল কখনই দেশের কৃষক মজদুরদের স্বার্থ রক্ষা করবে না। মন্তব্য করলেন এআইসিসি মুখপাত্র মোহন প্রকাশ। শুক্রবার বিধান ভবনে এক সাংবাদিক বৈঠকে তিনি এ কথা জানান।
তিনি কড়া নিন্দা করে বলেন, ‘এতদিন দেশ জুড়ে ভারতীয় সংবিধানের সুখ্যাতি হত। কিন্তু সেই সংবিধান এবার তলানীতে। কেন্দ্রীয় সরকার যেভাবে বিরোধীদের কন্ঠ রোধ করে নতুন কেন্দ্রীয় কৃষি ও মজদুর বিল পাশ করাল তা দেশের গনতন্ত্রকে প্রশ্ন চিহ্নের সম্মুখীন করে দিয়েছে। তাই আগামী 28 সেপ্টেম্বর প্রতিটি রাজ্যের রাজধানীতে প্রতিবাদ আন্দলন গড়ে তুলবে কংগ্রেস। শুধু তাই নয় আগামী দিনে কংগ্রেস কর্মী সমর্থকরা গ্রামে গ্রামে গিয়ে সকলের কাছে এই বিল সম্পর্কে বোঝাবে।’
এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, যেকোনো বিল সংসদে পাস করাতে গেলে বিরোধীদের বলার সুযোগ দিতে হয়। কিন্তু সংখ্যাগরিষ্ঠতার দম্ভে বিরোধীদের মাত্র দু মিনিট সময় দেওয়া হয়েছিল। বিলের স্বপক্ষে বা বিপক্ষে বলার জন্য। এর আগেও বহু বিল পাস হয়েছে সংসদে। কিন্তু সেখানে কখনোই বিরোধীদের কণ্ঠরোধ করা হয়নি। বিলের ত্রুটি বিচ্যুতি থাকতেই পারে। তা নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন। সেই সঙ্গে সংশোধনী আনা যেতে পারে। কিন্তু এখানে তো বিরোধীদের বলতেই দেওয়া হলো না। তাই দেশের তেরোটি বিরোধীদল একসাথে এই আন্দোলনে সামিল হয়েছে।
অন্যদিকে এআইসিসি মাইনরিটি দফতরের চেয়ার পার্সেন নাদিম জাভেদ বলেন, ‘দীর্ঘ সময় পর কংগ্রেসের পর কোনও দল একক ক্ষমতায় দেশের মসনদে বসেছে। কিন্তু বিগত ছয় বছর ধরে দেশের মানুষের জন্য কিছুই করতে পারেনি। বারে বারে দেশের মানুষকে নিরাশ করেছে। নোট বন্দি থেকে লকডাউন তার জলজ্যান্ত উদাহরণ। সম্প্রতি কৃষি ও মজদুর বিল তার প্রমান। বেকরত্বের সংখ্যা বেড়েছে। কংগ্রেসের সময় দেশের ঋণের পরিমান ছিল প্রায় ৫৪ লক্ষ কোটি টাকা। যা এখন ১০৪ লক্ষ কোটি টাকায় পৌছে গিয়েছে।’
এদিন এআইসিসির দুই সদস্য জোট প্রসঙ্গে স্পষ্ট করে দেন ইস্যু ভিত্তিক তৃণমূলকে পাশে পেতে চায়। তবে এ রাজ্যে কার সঙ্গে প্রকৃত জোট হবে তা ঠিক করবে মূলত চার জন। আইসিসি সভাপতি সোনিয়া গান্ধী প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী পিসিসি এবং রাজ্যের পর্যবেক্ষক গৌরব গগৈ। পাশাপাশি প্রদেশ সভাপতিরও এদিন ভুয়সি প্রশংসা করেন এআইসিসির দুই সদস্য।

Related Articles

Back to top button
Close