fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মহিলাদের আত্মসম্মান রক্ষার্থে অস্ত্র হাতে তুলে নেওয়ার পরামর্শ দিলেন অগ্নিমিত্রা পল

পাপ্পা গুহ, উলুবেড়িয়াঃ আপনাদের হাতে ৯টা মাস সময় আছে তারপরে আপনাদের কে বাঁচাবে। মুখ্যমন্ত্রী থাকবেন না আমরা থাকব। এখানে নেতা সেজে তৃণমূলের গুন্ডারা লুকিয়ে থাকলেও গর্ত থেকে তাদের টেনে এনে উচিৎ শিক্ষা দেব। অনেক খারাপ পুলিশ আছে, আপনাদের হুমকি দিয়ে যাচ্ছি ২০২১-এর মে মাসে আমরা সরকার গড়ার পর আপনাদের উচিত শিক্ষা দেব। বৃহস্পতিবার বাগনানে শীলতাহানির শিকার হওয়া কলেজ ছাত্রীর সঙ্গে দেখা করতে আসার পর বাগনান থানায় গিয়ে পুলিশ কর্মীদের উদ্দ্যেশে এই কথা বলেন বিজেপির মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পল।

 

 

এদিন তিনি বিজেপি কার্যকতাদের বলেন আইন নিজের হাতে নেবেন না। এদিন বিজেপি নেত্রী বলেন, যেভাবে রাজ্যে মহিলাদের উপর অত্যাচার চলছে সেটা আমরা সহ্য করব না। আর সেই কারণে নিজেদের আত্মসম্মান রক্ষার্থে মহিলাদের অস্ত্র হাতে তুলে নেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। অগ্নিমিত্রা পল বলেন, আত্মরক্ষার জন্য হাতে অস্ত্র তুলে নিয়ে কারোর কোনঅ অনুমতির প্রয়োজন নেই। অন্যদিকে বৃহস্পতিবার সকালে উলুবেড়িয়া মহকুমা হাসপাতালে মৃতার দেহ ময়না তদন্তের পর বিজেপি কর্মীরা মৃতদেহ নিয়ে উলুবেড়িয়া আদালতের সামনে চলে আসে। অভিযুক্তদের হয়ে কোনও আইনজীবি যাতে সওয়াল না করে সেই দাবিতে মৃতদেহ আদালতের সামনে রাস্তায় নামিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে।

 

 

 

প্রায় ১৫ মিনিট বিক্ষোভ চলার পর মৃতদেহ নিয়ে বাড়ির পথে রওনা দেয় বিজেপি কমীরা। এদিকে বেলায় মৃতদেহ গোপালপুর গ্রামে পৌঁছাতেই ক্ষোভে ফেটে পড়ে গ্রামবাসীরা তারা বহিস্কৃত তৃণমূল নেতার বাড়ির সামনে মৃতদেহ নিয়ে গিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। অভিযোগ, বিক্ষোভ চলাকালীন অভিযুক্তদের বাড়ির এক যুবক ধারালো অস্ত্র দিয়ে এক গ্রামবাসীকে পায়ে আঘাত করে। গুরতর আহত অবস্থায় ওই যুবক বর্তমানে কলকাতার এস এস কে এম হাসপাতালে ভর্তি। এদিকে যুবক আহত হওয়ার পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়ে গ্রামবাসীরা। তারা অভিযুক্ত তৃণমূল নেতার বাড়ি ও তার আত্মীয়দের বাড়িতে ভাঙচুর চালায়। পরে হাওড়া গ্রামীণ জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশিষ মৌর্যের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় র‍্যাফ মোতায়েন করা হয়েছে। এদিকে এদিন সকালে অগ্নিমিত্রা পল গ্রামে পৌঁছাতেই দোষীদের ফাঁসির দাবিতে গ্রামবাসীরা মৃতদেহ আটকে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। এদিন বিজেপি নেত্রীর পাশাপাশি কংগ্রেস বিধায়ক অসিত মিত্র এবং বাম মহিলা সমিতির সদস্যরা গ্রামে গিয়ে মৃতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন।

Related Articles

Back to top button
Close