fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রাজ্যের সবকটি বিমানবন্দরে শুরু হল বিমান পরিষেবা

পঙ্কজ বিশ্বাস, কলকাতা: নিস্তব্ধতা ভেঙে দীর্ঘ দু’মাস পর আজ থেকে ফের কলকাতা বিমানবন্দরে শুরু হল পরিষেবা। ইতিমধ্যে সকাল ৬ টা ২০ মিনিটে বিমানবন্দর থেকে দিল্লির উদ্দেশে প্রথম বিমানটি উড়ে গেছে। ৬ টা ৫০ মিনিটে দিল্লি থেকেই একটি বিমান অবতরণও করেছে কলকাতা বিমানবন্দরে।

অন্যদিকে প্রথম দিনেই বিমানবন্দরে শুরু হল ট্যাক্সিচালকদের দৌরাত্ম্য।বৃহস্পতিবার সকালে প্রথম বিমানে দিল্লি থেকে কলকাতা ফেরেন খরদহের বাসিন্দা সাবিনা বেগম। খরদহ যাওয়ার জন্য ট্যাক্সিচালক তার কাছে দুই হাজার টাকা দাবি করে। বিমানবন্দরে তাকে ঘন্টা দুয়েক অপেক্ষা করতে হয়। পুলিশের দাবি খুব শীঘ্র শুরু হবে প্রিপেড ট্যাক্সি পরিষেবা। প্রিপেড চালু হলে সমস্যার সমাধান হবে।

কলকাতা বিমানবন্দরে মোট ১০ জোড়া বিমান ওঠানামা করবে। দিল্লি ছাড়াও মুম্বই, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু ও ডিব্রুগড়ের জন্যও বিমান ওঠানামা করবে বলে জানা গেছে। আজ কলকাতা বিমানবন্দরে ইন্ডিগোর পাঁচটি, স্পাইস জেটের দু’টি , এয়ার ইন্ডিয়া, এয়ার এশিয়া ও ভিস্তারার একটি করে বিমান ওঠানামা করবে। ২৫ মে কলকাতা-সহ বাগডোগরা ও অন্ডাল বিমানবন্দর থেকেও পরিষেবা শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আপত্তির জন্যই রাজ্যে বিমান পরিষেবা পিছিয়ে দেওয়া হয়।

পরিষেবা পুনরায় স্বাভাবিক হওয়ায় খুশি যাত্রীরা। বিমান পরিষেবা ফের স্বাভাবিক হচ্ছে জানিয়ে আগেই বিমানবন্দরের কর্মীদের কাজে ফেরার জন্য নোটিস দেওয়া হয়েছিল। বিমান সংস্থাগুলির তরফেও পাইলট, বিমান সেবিকা ও কেবিন ক্রুদের কাজে যোগ দেওয়ার জন্য বলা হয়েছিল। স্বাভাবিক সংখ্যায় মোতায়েন করা হয়েছে বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা CISF-কেও । বিমান পরিষেবা চালু হলেও বিমানবন্দরের চিত্রটা অনেকটাই বদলে গেছে। সংক্রমণ ঠেকাতে কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয়েছে বিমানবন্দরকে । যাত্রীদের ও বিমানবন্দরের কর্মীদের জন্য SOP ঠিক করা হয়েছে।

বলা হয়েছে, প্রথমে কলকাতা বিমানবন্দরে প্রবেশ করলেই যাত্রীদের টিকিট ও পরিচয়পত্র পরীক্ষা করা হবে যন্ত্রের মাধ্যমে। এরপর সেই যাত্রী বিমানবন্দরে প্রবেশ করতে পারবে। তাঁদের বোর্ডিং পাস ইশু হবে সামাজিক দূরত্ব মেনেই। সেক্ষেত্রেও যন্ত্রের মাধ্যমেই যাত্রীদের টিকিট ও পরিচয়পত্র দেখে ইশু করা হবে বোর্ডিং পাস। এছাড়া, মালপত্রে ট্যাগ লাগাতে হবে সেই যাত্রীকেই। বোর্ডিং পাস ইস্যু হয়ে যাওয়ার পর বিমানে ওঠার আগে নিরাপত্তারক্ষীরা যাত্রীদের শরীরের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবেন দূরত্ব বিধি মেনেই। সেইমতোই চলছে কাজ।কলকাতা বিমানবন্দর থেকে শুরু হল পরিষেবা।

আজ থেকে কলকাতার মতো বাগডোগরা বিমানবন্দরেও শুরু হচ্ছে পরিষেবা। আগামী ৩৬ দিনের বিমানসূচিও ঘোষণা করা হয়েছে বাগডোগরা বিমানবন্দরের তরফে৷ কলকাতা বিমানবন্দরের মতোই বাগডোগরাতেও আপাতত দিনে ১০টি করে বিমান চলাচল করবে৷
বিমান বন্দরের ডিরেক্টর সুব্রহ্মণ্য পি জানান, “কেন্দ্রীয় নির্দেশিকা মেনেই চলবে বিমানগুলি ৷ টাচ ফ্রি স্ক্রিনিং, স্ক্যানার ও বাড়তি CCTV লাগানো হয়েছে ৷ “রাজ্যের দুই বিমানবন্দরে আজ থেকে পরিষেবা শুরু হলেও অন্ডাল বিমানবন্দরে এখনই শুরু হচ্ছে না পরিষেবা। সেখানে ৩১ মে পর্যন্ত কোনও বিমান ওঠানামা করবে না বলে জানানো হয়েছে।

অন্ডাল বিমানবন্দরের ডিরেক্টর অপূর্ব শর্মা জানান, ”৩১ মে পর্যন্ত নির্ধারিত মুম্বই ও চেন্নাই এই দু’টি রুটে বিমান চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে । তবে, আমরা আশাবাদী জুন মাসের ১ তারিখ থেকে মুম্বই ও চেন্নাই রুটে বিমান চলাচল শুরু হবে ।” নতুন করে বিমান চলাচল শুরু হওয়ার নির্দেশিকা জারি হওয়ার পর অন্ডাল বিমানবন্দরকে জীবাণুমুক্ত করার কাজ শুরু হয়। বিমানবন্দরে যাওয়ার রাস্তা সংস্কারের কাজও করা হয়েছে। পরিষেবা শুরু হলে অন্ডাল বিমানবন্দর থেকে যাত্রীদের যাতে গন্তব্যে পৌঁছাতে অসুবিধা না হয়, তার জন্য ক্যাব ট্যাক্সি পরিষেবার কথাও বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close