fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

পুজোয় সংক্রমণ রুখতে রাজ্যের ছোটো, বড় সমস্ত পুজো প্যান্ডেলই ‘NO ENTRY’ বাফার জোন, জানাল হাইকোর্ট

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: পুজোর ভিড় এড়াতে এবার বড়সড় পদক্ষেপ নিল কলকাতা হাইকোর্ট। পুজোর ভিড় নিয়ে জনস্বার্থ মামলায় এমনটাই রায় দিল হাইকোর্ট। এদিন বিচারপতির বেঞ্চ জানিয়ে দিয়েছে, প্রতিটি পুজো মণ্ডপ কন্টেইনমেন্ট  জোন। দর্শক শূন্য থাকবে পুজো মণ্ডপ।

পাশাপাশি মণ্ডপের মধ্যে ১৫ থেকে ২০ জন স্বেচ্ছাসেবক থাকবে। তাদের নাম আগে থেকে পুলিশের কাছে নথিভূক্ত করতে হবে। ছোট প্যান্ডেলে ৫ মিটার দূরত্ব, বড় ক্ষেত্রে ১০ মিটার দূরত্ব রাখতে হবে। প্যান্ডেলের এরিয়া ব্যারিকেড করতে হবে। সেখানে নো এনট্রি লিখে দিতে হবে। একটি তালিকা তৈরি করতে হবে। রাজ্যের ছোটো, বড় সমস্ত পুজো প্যান্ডেলই নো এন্ট্রি বাফার জোন, প্যান্ডেল এরিয়ায় থাকবে ব্যারিকেট। লেখা থাকবে নো এন্ট্রি জোন।

             আরও পড়ুন:  পুজোয় ভিড় নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ কলকাতা হাইকোর্টের

এ বিষয়ে বিচারপতির বেঞ্চের পরামর্শ, শহরে যেমন মার্কেটে ভিড় হচ্ছে, সেটার পুনারাবৃত্তি হতে দেওয়া যায় না। ভার্চুয়াল কভারেজ করা যেতে পারে। সাধারণ দর্শক ভার্চুয়াল দেখবেন। রাজ্যের যে ৩৪ হাজার পুজো কমিটি অনুদান নিয়েছে এই নিয়ম সকলের জন্য প্রযোজ্য। হাইকোর্টের পর্যবেক্ষণ, ৩ হাজার পুজো মণ্ডপ আছে। সোমবার এই সংক্রান্ত মামলার শুনানিতে আশঙ্কা প্রকাশ করে ডিভিশন বেঞ্চের মন্তব্য, ‘কাগজে যা ছবি দেখছি, তা ভয় জাগানো। ২-৩ লক্ষ মানুষকে সামলাতে ৩০ হাজার পুলিশ !’
তবে রাজ্যের তরফে এডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত আদালতে জানান, আরও পুলিশ বাড়ানো হবে।

তার পরিপ্রেক্ষিতে ডিভিশন বেঞ্চ রাজ্য সরকারের উদ্দেশ্যে মন্তব্য আরও মন্তব্য করে, ‘স্বরাষ্ট্র ও মুখ্যসচিবের কাছ থেকে কোনও পরামর্শ আসেনি, আপনাদের আরও সক্রিয় হওয়া উচিত ছিল’।’ পাশাপশি, ‘সরকারি গাইডলাইনে সদিচ্ছা আছে, তার বাস্তবায়ন নেই। মুম্বইতে গণেশ পুজোর অনুমতি দেওয়া হয়নি’ বলেও মন্তব্য করে কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ।
প্রসঙ্গত, করোনা অতিমারি পরিস্থিতিতে অধিক সংক্রমনের আশংকা করে এবং করোনা আবহে এবছর বারোয়ারি দুর্গাপুজো বন্ধ রাখা নিয়ে এই মামলা দায়ের হয় কলকাতা হাইকোর্টে। কেরলের ওনাম উৎসবের পর যে অবস্থা হয়েছে সেখানকার, এখানেও দুর্গাপুজো সেইভাবে পালিত হলে করোনা সংক্রমণ বাড়বে। এই প্রসঙ্গে মহারাষ্ট্রে গণেশ পুজো উৎসব এবং মহরম উৎসব অনুমতি দেওয়া হয়নি বলেও জানানো হয় মামলায়।

Related Articles

Back to top button
Close