fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

কে হিন্দু, কে মুসলিম তা দেখবে না কোর্ট, ‘লাভ জিহাদ’ নিয়ে ঐতিহাসিক রায়দান এলাহাবাদ হাইকোর্টের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: লাভ জিহাদ নিয়ে এবার বড়সড় রায়দান করল এলাহাবাদ হাইকোর্ট। এলাহাবাদ হাইকোর্টের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, কে হিন্দু, কে মুসলিম তা দেখবে না কোর্ট। এইক্ষেত্রে দুইজন প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিক নিজেদের ইচ্ছায় বিয়ে করেছেন কিনা সেটাই দেখা হবে। হাইকোর্টের পক্ষ থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, এই বিষয়ে কোর্ট মাথা ঘামালে তা সংবিধান বিরোধী হয়ে যাবে। বিচারপতি জানিয়েছেন যে, এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করলে সংবিধান অনুযায়ী প্রত্যেক নাগরিকের যে ব্যক্তিস্বাধীনতা তাতে অযাচিতভাবে হস্তক্ষেপ করা হবে। তা সংবিধানবিরোধী। এই ক্ষেত্রে কে প্রিয়ঙ্কা কে সালামত, তা দেখবে না কোর্ট। প্রাপ্তবয়স্ক দুইজন বিয়ের পর সুখী কিনা সেটাই দেখতে হবে।

আরও পড়ুন- বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, হিমাচলপ্রদেশে নাইট কার্ফু জারি

উল্লেখ্য, উত্তরপ্রদেশে কুশিনগরের বাসিন্দা প্রিয়ঙ্কা খারওয়াড় ও সালামত আনসারি বছর খানেক আগে প্রণয়সূত্রে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বিয়ের আগে প্রিয়ঙ্কা ধর্ম বদল করে ফেলেন। ধর্ম বদল করে সে মুসলিম হয়ে যায়। মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করার পর তাঁর নাম আলিয়া হয়ে যায়।

কিন্তু এই বিয়ে মানতে পারেনি প্রিয়ঙ্কার পরিবার। প্রিয়ঙ্কাকে জোর করে বিয়ে করা হয়েছে অভিযোগ তুলে  মামলা দায়ের করে প্রিয়ঙ্কারন পরিবার। সেই মামলার রায়দান করতে গিয়েই এইকথা বলে এলাহাবাদ হাইকোর্ট।  সেই মামলার শুনানিতে মঙ্গলবার এলাহাবাদ হাইকোর্টের পক্ষ থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয় যে,  এই বিয়ের পর বছরখানেক হয়ে গিয়েছে। এর মধ্যে প্রিয়ঙ্কার তরফ থেকে কোনও মামলা বা অভিযোগ করা হয়নি। এর থেকেই স্পষ্ট এই দম্পতির মধ্যে কোনও সমস্যা নেই। ফলে বাইরে থেকে কারও অভিযোগ এখানে মান্যতা পাবে না। এই মামলা বাতিল করে দেওয়া হয়। উল্লেখ্য, একের পর রাজ্যে লাভ জিহাদের বিরুদ্ধে কড়া আইন আনা হচ্ছে। উত্তরপ্রদেশেও ‘লাভ জিহাদে’র বিরুদ্ধে কড়া আইন আনার কথা চলছে।  এরমধ্যেই এলাহাবাদ হাইকোর্টের এই যুগান্তকারী রায় দিল।

 

Related Articles

Back to top button
Close