fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাংলা আবাস যোজনায় ঘর পাইয়ে দেওয়ার নাম করে কাটমানি চাওয়ার অভিযোগ

মিল্টন পাল, মালদা: বাংলা আবাস যোজনায় ঘর পাওয়ার তালিকায় নাম তুলে দেওয়া ও আধার লিঙ্ক করে দেওয়ার নামে মোটা টাকা কাটমানি চাওয়ার অভিযোগ উঠল গ্রামের তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত প্রধান ও এলাকার গ্রাম পঞ্চায়েতের মেম্বারের বিরুদ্ধে। মালদার হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নম্বর ব্লকের রশিদাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের ঘটনা। গ্রামবাসীরা বিডিও জেলাশাসকের মারফত এবার মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছেন। এই নিয়ে শুরু হয়েছে বিজেপি তৃণমূল চাপান-উতোর। যদিও সমস্ত ঘটনা বিরোধীদের চক্রান্ত বলে দাবি তৃণমূল কংগ্রেসের।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ বাংলা আবাস যোজনায় তালিকায় তাদের নাম রয়েছে। কিন্তু সেই নামের তালিকার সঙ্গে তাদের আঁধার লিঙ্ক করাতে হবে। তাহলেই মিলবে ঘর। আর এই আধার লিঙ্ক করাতে গেলে গ্রামের পঞ্চায়েত সদস্য এক্রামূল হক ও গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান পুষ্প রবিদাসকে দিতে হবে মোটা টাকা কাটমানি। আর তা না দিলে মিলবে না ঘর। ফলে সমস্যায় পড়েছে গ্রামের সাধারণ মানুষ। এই নিয়েই তারা স্থানীয় বিডিও জেলাশাসক ও মুখ্যমন্ত্রীর কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
ওই গ্রামের বাসিন্দা সাহানারা বিবি বলেন, মেম্বার প্রধানরা বলছেন ঘর পেতে হলে টাকা দিতে হবে। না হলে ঘর পাওয়া যাবে না। আমরা সাধারণ মানুষ বলে কি মেম্বার প্রধানরা শাসন করবে। আমরা যদি কাটমানি দিতে পারতাম তাহলে আমাদের বাড়ির কি প্রয়োজন ছিল। কাটমানি দিতে না পারলে ঘরের তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়া হচ্ছে। আমরা সমস্ত অভিযোগ জেলাশাসক, ও মুখ্যমন্ত্রীকে লিখিতভাবে জানিয়েছি।

আরও পড়ুন: কঙ্গনার দিকে খারাপ দৃষ্টিতে তাকানো হলে চোখ উপড়ে নেওয়ার হুমকি করণী সেনার

যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন গ্রাম পঞ্চায়েতের স্থানীয় মেম্বার এক্রামূল হক। তিনি বলেন, আমি কাটমানি নিইনই। এরা মিথ্যা ভিত্তিহীন অভিযোগ করে তৃণমূলকে কালিমালিপ্ত করতে চাইছে। এটা বিরোধীদের চক্রান্ত।তারা আমাদেরকে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে।

গোটা ঘটনা নিয়ে সরব হয়েছেন জেলা বিজেপি। জেলা বিজেপির সহ-সভাপতি অজয় গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, হরিশ্চন্দ্রপুর ১নম্বর ব্লকে তৃণমূল পরিচালিত যে সব প্রধানরা রয়েছে তারা প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার ঘর তৈরির নামে ২০ হাজার টাকা ও আঁধার লিঙ্কের নামে পাঁচ হাজার টাকা কাটমানি নিচ্ছে। আমরা অবিলম্বে এই ঘটনার তদন্ত চাইছি প্রশাসনিক স্তরে। কিন্তু মুশকিল হচ্ছে উপরতলা থেকে নিচুতলা পর্যন্ত সমস্ত সরকারি আধিকারিকরাও এই জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে যুক্ত। যার জন্য সাধারণ মানুষ যাদের কাছে অভিযোগ করবে তারাই এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত। তাই প্রশাসন যদি এদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না দেয় তাহলে বিজেপি ওই এলাকার মানুষদের নিয়ে ব্লক ঘেরাও করবে আন্দোলনে নামবে মানুষের স্বার্থে।

আরও পড়ুন:রিয়া চক্রবর্তীর গ্রেফতারের পর সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে মুখ খুললেন অঙ্কিতা

জেলা তৃণমূলের কো-অডিনেটর দুলাল সরকার বলেন, বিরোধী দলরা ঘরের নাম করে মানুষের কাছে অপপ্রচার করছে। এবং ওরা ফর্মফিলাপ করছে টাকার বিনিময়ে। তৃণমূল কংগ্রেসের নামে অপপ্রচার কর কিছু বিরোধী দল সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করছে। মানুষ অত বোকা নয়। এই অপপ্রচার করে কোনও লাভ হবে না।

Related Articles

Back to top button
Close