fbpx
দেশহেডলাইন

ঘুষ দিতে চাওয়ার অভিযোগ, ‘আমি দুঃখিত তবে অবাক নই’, পাল্টা তোপ পাইলটের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: পাইলটকে নজিরবিহীন আক্রমণ শানালেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। তাঁর অভিযোগ, নিজের নিরীহ চেহারার সুযোগ নিয়ে কংগ্রেসকে পিছন থেকে ছুরি মেরেছেন পাইলট। আসলে তিনি কোনও কার্যকরী নেতাই নন। তাঁর বিরুদ্ধে গদির লোভের অভিযোগ উঠেছে। তাঁর বিরুদ্ধে বিজেপি সঙ্গে আঁতাত গড়ে ঘোড়া কেনাবেচার অভিযোগ রয়েছে কংগ্রেসের অশোক শিবিরের থেকে। এই সব অভিযোগের পর মরুরাজ্যে রাজনীতির নাটকীয় মোড়ে পাল্টা তোপ শচীনের।

গোটা ভারতীয় মিডিয়ার নজর এই মুহূর্তে  পাইলটের দিকে। যিনি আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন নিজের বিধায়ক পদ বাতিলের বিরুদ্ধে, যা পরোক্ষে কংগ্রেসকে ঠেকানোর নামান্তর। এদিকে, তাঁর বিরুদ্ধে ৩৫ কোটি টাকার অফার এক কংগ্রেস বিধায়ককে ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। কংগ্রেস বিধায়ক গজরাজের দাবি, বিজেপিতে যোগদানের জন্য তাঁকে এমন টাকা অফার করেন শচীন।

‘ আমি দুঃখিত তবে অবাক নই, এমন ভিত্তিহীন আফসোসজনক মন্তব্য আমার বিরুদ্ধে করার জন্য। এটা আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করতে করা হয়েছে। আমি দলের কিছু উদ্বেগজনক বিষয় নিয়ে সরব হতেই এটা করা হচ্ছে। এই আক্রমণ আরও বাড়বে..।’ যে সমস্ত বিধায়ক পাইলটের বিরুদ্ধে ঘোড়া কেনাবেচা নিয়ে অভিযোগ তুলেছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে এবার আইনি রাস্তায় যাচ্ছেন শচীন। তাঁর দাবি, এখানেই শেষ নয়, এরপরও তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক এই ধরনের অভিযোগ উঠবে। তবে তাতে তিনি অবদমিত হচ্ছেন না।

আরও পড়ুন: পাইলট যে খেলাটা খেলল সেটা খুব দুর্ভাগ্যজনক, নিরীহ চেহারার আড়ালে পিছন থেকে ছুরি মেরেছে’, তোপ গেহলটের

অভিযোগকারী বিধায়ক গিরিরাজ সিং মালিঙ্গা আগে বহুজন সমাজ পার্টিতে ছিলেন। পরে তিনি কংগ্রেসে যোগ দেন। তাঁর কথায়, ‘ডিসেম্বর মাস থেকে আমাকে অফার দেওয়া হচ্ছে। আমি তাদের বারবার বলেছি, এই প্রস্তাবে রাজি হওয়া আমার পক্ষে সম্ভব নয়। শচীন পাইলট আমার সঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি জিজ্ঞাসা করেছিলেন, আপনার কত টাকা চাই? তিনি ৩৫ কোটি টাকা অবধি দিতে রাজি ছিলেন।’ মালিঙ্গার দাবি, দুর্নীতির জন্যই তিনি বিএসপি ছেড়েছিলেন। এখন যদি তিনি কংগ্রেস ছাড়েন, তাহলে প্রকাশ্যে মুখ দেখাতে পারবেন না। মালিঙ্গা বলেন, তিনি অশোক গেহলোটকে সাবধান করে বলেন, দল ভাঙার চেষ্টা হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, চিন্তা করবেন না। আমরা সব সমস্যারই সমাধান করব।

Related Articles

Back to top button
Close