fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দিনহাটা হাসপাতালে রোগী মৃত্যুর ঘটনায় চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী দের উপর হামলার অভিযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনহাটা: হাসপাতলে রোগী মৃত্যুর ঘটনায় চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী দের উপর হামলার পাশাপাশি বিভিন্ন রকম ইঞ্জেকশন ও ওষুধপত্র ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠল মৃত ব্যক্তির আত্মীয়-পরিজনদের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে বারোটা নাগাদ দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। হাসপাতালে পক্ষ থেকে মহকুমা শাসকের পাশাপাশি পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। মৃত ওই ব্যক্তির নাম সেবক সাহা ( ৫০)। তার বাড়ি শহরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে। ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই পুলিশ হাসপাতালে ছুটে গেলে পরিস্থিতি ধীরে ধীরে নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে মৃত ব্যক্তির পরিবারের পক্ষ থেকে এখনও কোনও অভিযোগ জমা পড়েনি। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের পাঠায়।

জানা গেছে, এদিন রাত সোয়া বারোটা নাগাদ শ্বাসকষ্ট অবস্থায় ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে আসে পরিবারের লোকজন। হাসপাতলে নিয়ে আসা হলে মুহূর্তেই তার চিকিৎসা শুরু হয়। অভিযোগ ইনজেকশন দেওয়ার অল্পসময়ের মধ্যেই তার মৃত্যু হয়। এর পরেই রোগীর বাড়ির লোকজন উত্তেজিত হয়ে ওঠে বলে জানা গেছে। এদিকে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে ওই রোগী বেশ কিছুদিন ধরেই সুগার ও প্রেসারে আক্রান্ত ছিলেন । চিকিৎসা শুরু হওয়ার অল্প সময়ের মধ্যেই তার মৃত্যু হতেই রোগীর বাড়ির লোকজন ইমার্জেন্সিতে থাকা দুই চিকিৎসক সোমনাথ সিংহ রায় ও অমর মণ্ডল কে শারীরিকভাবে নিগ্রহ করা ছাড়াও কর্তব্যরত স্বাস্থ্যকর্মী কেউ হেনস্তা করেন বলে অভিযোগ।হাসপাতালে ইমার্জেন্সি টেবিল ধাক্কা দেওয়া হয় চিকিৎসকের উপর। চিকিৎসক অমর মণ্ডল তার বুকেও আঘাত পান বলে জানান।

চিকিৎসক অমর মণ্ডল জানান, এদিন তিনি এইচডি ইউ তে রোগী দেখছিলেন। সে সময় ইমারজেন্সিতে চিকিৎসক সোমনাথ সিংহ রায় ওই রোগীকে দেখার পরে ভর্তির ব্যবস্থা করেন। খবর পেয়ে তিনিও দ্রুত এইচডি ইউ থেকে নেমে আসেন এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসা শুরু করতেই রোগীর মৃত্যু হয়। এর পরেই রোগীর আত্মীয় পরিজনেরা ভুল চিকিৎসার অভিযোগ তুলে তাদেরকে শারীরিক নিগ্রহ করেন বলে অভিযোগ।

করোনা আবহে যখন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী রা নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে চলছে তখন ওই রোগীর সাথে আসা আত্মীয় পরিজনরা মদ্যপ অবস্থায় হাসপাতালের ভেতরে ঢুকে ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ তুলে তাদেরকে হেনস্থা করে। বিভিন্ন সময় অপ্রীতিকর ঘটনা রোধে হাসপাতালে পুলিশি নজরদারি বাড়ানোর দাবি উঠেছে।

এদিকে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে আরেক চিকিৎসক কল্লোল বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন স্বাস্থ্য পরিষেবা দিতে গিয়ে চিকিৎসকদের এভাবে হেনস্থা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। গোটা ঘটনা পুলিশ ও প্রশাসনকে জানানোর পাশাপাশি তারা রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর গোচরে আনবেন। অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন তারা।

বিষয়টি নিয়ে হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত সুপার পুলক আদক বলেন এই ঘটনায় ইতিমধ্যে পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ জানান হয়েছে। চিকিৎসা পরিষেবা দিতে গিয়ে এভাবে হেনস্তা করোনা আবহে কার্যত চিকিৎসকদের এভাবে আক্রমণ মেনে নেওয়া যায় না।
দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত জানান মৃত ব্যক্তির পরিবারের পক্ষ থেকে এখনও কোনও অভিযোগ জমা পড়েনি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অভিযোগ তারা পেয়েছেন। ঘটনা তদন্ত করে দেখার পাশাপাশি মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের পাঠান হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close