fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রেশন নিয়ে দুর্নীতি! পঞ্চায়েত প্রধান ও উপ প্রধানকে মারধরের অভিযোগ কংগ্রেসের বিরুদ্ধে

মিল্টন পাল,মালদা: করোনা আবহে পরিযায়ী শ্রমিকদের রেশন নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ ঘিরে চন্ডিপুর গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান ও উপ প্রধানকে মারধরের অভিযোগ কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। ঘটনায় পরিযায়ী শ্রমিকদের বিক্ষোভ ঘিরে উত্তপ্ত মালদার মানিকচক ব্লকের উত্তর চন্ডিপুর গ্রাম পঞ্চায়েত। পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামী আতাউর রহমান ও উপপ্রধান সমর মন্ডলকে মারধরের অভিযোগ।কংগ্রেসের নেতৃত্বে মারধর চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েতের উপপ্রধানের। পঞ্চায়েতের লোকেরাই প্রথমে হামলা চালাতে আসে, প্রতিরোধ করে কংগ্রেস বলে দাবি জেলা কংগ্রেস নেতৃত্বের।
সূত্রের খবর করোনা সংক্রমনেরমধ্যে রাজ্য সরকারের উদ্যোগে জেলায় ফিরে আসে এজেলার শ্রমিকেরা। এরপর রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে তাদের রেশন সামগ্রী দেওয়ার কথা ঘোষণা করে। কিন্তুু দেখা যায় সেখানে প্রকৃত শ্রমিকের রেশন সামগ্রী পাচ্ছে না। রেশন সামগ্রীর তালিকায় রয়েছে তৃণমূল পরিচালিত প্রধান ও উপ প্রধান ঘনিষ্টদের নাম। তালিকা থেকে বাদ যায় প্রকৃত শ্রমিকদের নাম। এরপর একাধিক বার এই নিয়ে বিক্ষোভ দেখায় শ্রমিকেরা। এদিন সেই ঘটনা নিয়ে উত্তাল হয়ে ওঠে এলাকা। অভিযোগ এই সমস্ত শ্রমিকদের কংগ্রেস নেতৃত্ব পেছন থেকে উস্কে প্রধান ও উপ প্রধানকে মারধর করেছে। ঘটনায় দুইজন আহত অবস্থা মানিকচক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসে।
তৃণমূলের মালদা জেলার সাধারণ সম্পাদক দেবপ্রিয় সাহা বলেন, কংগ্রেস বিজেপি সিপিএম ওখানে একত্রিত হয়ে নিরীহ শ্রমিকদের উস্কানি দিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। আমাদের প্রধানের স্বামী উপপ্রধানকে খুন করার চেষ্টা করেছে। আমরা থানায় অভিযোগ জানিয়েছি ব্যবস্থা নিতে বলেছি।
            এনিয়ে নিয়ে কংগ্রেসের মালদা জেলা সাধারণ সম্পাদক কালী সাধন রায় বলেন,ওখানে শ্রমিকদের সাথে রেশনের টোকেন বিলির নামে প্রতারণা চলছিল বেশ কিছুদিন ধরে।  আমাদের কংগ্রেসের স্থানীয় নেতারা শ্রমিকদের হয়ে প্রতিবাদ করে। সেই সময় পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামী ও উপপ্রধান তাদেরকে মারতে আসে। পাল্টা প্রতিরোধ করলে তারা আহত হয়। এই প্রতিরোধ চলবে।
          ঘটনায় কংগ্রেসের পাশে দাঁড়িয়েছে বিজেপি। বিজেপির মালদা জেলার সহ-সভাপতি অজয় গঙ্গোপাধ্যায় বলেন এই রাজ্যে তৃণমূলের অন্যায় অত্যাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে বিজেপি শিখিয়েছে। সারা রাজ্য জুড়ে বিজেপি প্রতিরোধ করছে। এখানে কংগ্রেস যা করেছে সঠিক কাজ করেছে। যেখানে যেখানে যে ধরনের প্রতারণা হবে সেখানে সেখানে প্রতিরোধে বিজেপি নামবে।
      এদিকে উভয়পক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ভুতনি থানার পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close