fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রেশনের চাল অন্যত্র পাচারের অভিযোগে আটক টোটো চালক, বাজেয়াপ্ত চাল

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: রেশনের চাল অন্যত্র পাচার করার অভিযোগ উঠল ডিলারের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে বর্ধমানে শহরের গোদা এলাকায়। বর্ধমান থানার পুলিশ রেশন ডিলার আহমেদ হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে। তদন্ত শুরু করেছে। পাশাপাশি মহকুমা খাদ্যদফতর ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। চাল পাচারে ব্যবহৃত টোটো ও তার চালককে আটক করে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।

গোদা এলাকার বাসিন্দাদের কথায় জানা গিয়েছে, স্থানীয় রেশন ডিলার অন্য বস্তায় চাল ভরে বেশ কিছুদিন যাবৎ রাতের অন্ধকারে টোটোতে করে চাল পাচার করছিল। এলাকাবাসীর কাছ থেকে সেই খবর পেয়ে তৃণমূলের কর্মী বলে পরিচিত কয়েকজন ভোর থেকে রেশন দোকানের আশেপাশে পাহারা দেওয়া শুরু করে।

আরও পড়ুন:কালীঘাট ও চিংড়িহাটা সেতু সারাইয়ে মাস্টার প্ল্যান তৈরি করতে চায় পুর ও নগরোন্নয়ন দফতর

স্থানীয় শেখ আসিফ আলির বক্তব্য এদিন সকাল  সাড়ে ছ’টা নাগাদ একটি টোটোতে করে করে বেশ কয়েক বস্তা চাল ডিলারের ঘর থেকে নিয়ে যাওয়া যাচ্ছিল। সন্দেহ হওয়ায় তারা টোটো চালককে আটক রেখে জিজ্ঞাসাবাদ চালানো শুরু করেন।

আরও পড়ুন:শ্বশুরের কেনা ফ্ল্যাটেই বন্দুক লুকিয়ে রেখেছিল অমিত, হিটলিস্টে ছিল শ্যালকও

রেশন ডিলারের গুদাম থেকে চাল অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার কথা টোটো চালক স্বীকার করে। এই ঘটনা জানাজানি হতেই এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ডিলারের বিরুদ্ধে এলাকার সবাই স্বোচ্চার হন।

গোদার উপভোক্তাদের অনেকেই  অভিযোগ করেছেন, রেশনের কার্ড থাকা সত্ত্বেও কয়েক বছর ধরে তারা ঠিকঠাক খাদ্যসামগ্রী পাচ্ছেন না। ডিলারকে সেকথা বললে তিনি তা মানতেন না। রেশন ডিলারের শাস্তির দাবি করেছেন উপভোক্তারা।

পুলিশ সূত্রে খবর আটক টোটো চালক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন, লকডাউনের সময় ৫-৬বার সে রেশন দোকান থেকে চাল বাজারে নিয়ে গিয়েছে। যদিও রেশন ডিলার কোন অভিযোগ মানতে  চায়নি। সে দাবি করছে ওই চাল নাকি তার গুদাম থেকে বের হয়নি।পুলিশ ও খাদ্য দফতর ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

Related Articles

Back to top button
Close