fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আসানসোলে বেআইনিভাবে সরকারি জমি দখল করে পার্টি অফিস নির্মাণের অভিযোগ

শুভেন্দু বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল: সরকারি জমি দখল করে বেআইনিভাবে তৈরী করা হচ্ছিল শাসক দলের দলীয় অফিস। নোটিশ পাঠিয়ে সেই অফিস তৈরীর কাজ বন্ধ করে দিল তৃণমুল কংগ্রেস পরিচালিত আসানসোল পুরনিগম। রেলপারের ইকবাল সেতুর কাছে নদী পাড় এলাকায় শাসক দলের এই অফিস নির্মাণকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে আসানসোল পুরনিগমের ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে। তৃণমূল কংগ্রেসের চালিত আসানসোল পুরনিগম এই ব্যাপারে কড়া মনোভাব নেওয়ায় এলাকার বাসিন্দারা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। কারণ তারাই বেআইনি এই কাজের বিরোধিতায় সরব হয়েছিলেন। তারা বিক্ষোভ দেখানোর পাশাপাশি পুরনিগমের কাছে এই ব্যাপারে অভিযোগ করেছিলেন। তবে, দলেরই পরিচালিত পুরবোর্ড এই সিদ্ধান্ত নেওয়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্বের একাংশ ক্ষুব্ধ হয়েছেন। এই ঘটনায় যে আসানসোলের রেলপার এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠী কোন্দল আরও একবার প্রকাশ্যে চলে এল। ২৫ নং ওয়ার্ডের তৃণমুল কংগ্রেসের কাউন্সিলার মহঃ নাসিম আনসারি পুরনিগমের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন।

জানা গেছে, আসানসোল উত্তর বিধানসভার আসানসোল পুরনিগমের ২৫ নং ওয়ার্ডের রেলপার এলাকায় ইকবাল সেতুর কাছে তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ের জন্য পাকা ভবন তৈরীর কাজ চলছিল। অভিযোগ উঠেছে যে, শাসক দলের অফিসটি সরকারি জমি দখল করে বিনা অনুমতিতে, কোন রকম প্ল্যান ছাড়াই তৈরি করা হচ্ছে। এলাকার বাসিন্দারা এই ভবনের ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ জানান আসানসোল পুরনিগমের কাছে। এরপরে পুরনিগমের পক্ষ থেকে এলাকায় ইঞ্জিনিয়ার পাঠিয়ে তদন্ত করা হয়। ইঞ্জিনিয়ার দেখেন, এলাকা বাসিন্দাদের অভিযোগ সত্য। এরপরে পুরনিগমের তরফে নোটিশ পাঠিয়ে সেই অফিস তৈরীর কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়।
ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের পাশাপাশি পুরনিগমের চেয়ারম্যান গোলাম সরবর বলেন, পুরনিগম সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে কাজ বন্ধ করে দিয়ে। কারণ ভবন তৈরীর কাজ বেআইনিভাবে করা হচ্ছিল।

তৃণমূল কংগ্রেসের একাংশ বলেন, এলাকায় একটি দলীয় অফিস আছে। তাও আরও একটি দলের অফিস তৈরির নামে নতুন ভবন তৈরি করা হচ্ছিল। এলাকার বাসিন্দারা বলেন, দোতলা এই ভবনের নিচের তলাটি ভাড়া দেওয়ার জন্য তৈরী করা হচ্ছিল। বোঝা যায়, দলীয় অফিসের নামে সরকারি জমি দখল করে ব্যবসার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল।

এলাকার কাউন্সিলার সূত্রে জানা গেছে, দুবছর আগে ইকবাল সেতুর কাছে একটি অস্থায়ীভাবে তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় অফিস ছিল। সেই অফিসটি আগুন লেগে পুড়ে যায়। তারপরে এলাকার বিধায়ক তথা রাজ্যের আইন ও শ্রম মন্ত্রী মলয় ঘটক ও মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারি নতুন করে সেই অফিস তৈরি করতে সাহায্য করেছেন। কিন্তু পুড়ে যাওয়া দলীয় অফিসটি না করে, দূরে অন্য একটি অফিস তৈরির কাজ শুরু হয়। যে অফিস নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক। পুরনিগমর ইঞ্জিনিয়ার অনির্বান মুখোপাধ্যায় বলেন, এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ পেয়ে আমরা তা খতিয়ে দেখি। বুঝতে পারি এলাকার সরকারি জমি দখল করে কেউ বা কারা বেআইনিভাবে ভবন তৈরির চেষ্টা করছে। সেই কাজের জন্য কোনও অনুমতি নেই। তাই কাজ বন্ধ করে দিয়ে নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে, আসনসোল উত্তর বিধানসভা ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি উৎপল সিনহা বলেন, এখানে বেআইনিভাবে কাজ করা হয়নি। দলের একাংশের যোগসাজশেই দলের অফিস তৈরির কাজ বন্ধ হয়ে গেছে। তারা নিজেদের ক্ষমতা দেখাতে পুরনিগমকে ব্যবহার করছে।

Related Articles

Back to top button
Close