fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ধর্মীয়স্থান দখল করার অভিযোগ, বিডিও অফিস ঘেরাও করে আদিবাসীদের বিক্ষোভ

শুভেন্দু  বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল: আদিবাসীদের ধর্মীয়স্থান জমি মাফিয়ারা দখল করতে চাইছে এই অভিযোগ তুলে শুক্রবার রানিগঞ্জের বিডিও অফিস ঘেরাও করে  বিক্ষোভ দেখালো আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষেরা। আদিবাসীদের এই বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে রানিগঞ্জ বিডিও অফিস চত্বরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

রানিগঞ্জের বল্লভপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের নুপুর মৌজার সাঁওতাল আদিবাসীদের জাহির থান বা ধর্মীয়স্থানকে বেশ কিছু জমি মাফিয়ারা দখল করতে চাইছে। এই অভিযোগ তুলে এদিন আদিবাসী সাঁওতাল  গ্রাম সভার পক্ষ থেকে রানিগঞ্জ বিডিও অফিস ঘেরাও করার পাশাপাশি অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখানো হয়। পাশাপাশি গ্রামসভার পক্ষ থেকে একটি স্মারকলিপিও বিডিওর অনুপস্থিতিতে তুলে দেওয়া হয় যুগ্ম বিডিও অমর্ত্য মুখোপাধ্যায়  হাতে।

[আরও পড়ুন- সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত… ইছাপুরের মন্দির, মসজিদ ও গির্জায় স্যানিটাইজ করলেন নোয়াপাড়ার তৃণমূল কর্মীরা]

এই প্রসঙ্গে আদিবাসী সাঁওতাল গ্রাম সভার সদস্যা সীমা মান্ডি বলেন, গত ১৫০/ ২০০ বছর ধরে ওই স্থানটি আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষেরা ধর্মীয়স্থল বা জাহির থান বলে জানেন। আদিবাসী মানুষরা সেখানেই  পুজো  করে থাকেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ইদানিং সেই জায়গাটি  বেশ কিছু জমি মাফিয়ারা নিজেদের জমি বলে দখল করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তিনি ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, আদিবাসীদের আত্মমর্যাদার ওপর আঘাত হানার চেষ্টা করা হচ্ছে। আমরা সেই জমি দখল করতে বাধা দেওয়ায় আমাদের হুমকি পর্যন্ত দেওয়া হচ্ছে। সীমা দেবী বলেন, গোটা বিষয়টি আমরা বিডিওকে জানালাম। আমরা কোনও মতেই ওই জমি ছাড়ব না। যারা আমাদের হুমকি দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছি। তা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামার হুমকি দেয় বিক্ষোভকারীরা।

খবর পেয়ে সেখানে চলে আসেন রানিগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি বিনোদ নুনিয়া। তিনি বলেন,  জমি যার হোক না কেন, ওই জমি জোর করে কেড়ে নেওয়া বা দখল করা যাবেনা। আমরা বিষয়টি দেখছি। পাশাপাশি ওই জমিতে ৩ লক্ষ টাকা ব্যয় করে একটি বেদী তৈরী করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন তিনি। যুগ্ম বিডিও অর্মত্য মুখোপাধ্যায় স্মারকলিপি নেওয়ার পরে আশ্বাস দিয়ে বলেন, অভিযোগ খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close