fbpx
কলকাতাহেডলাইন

শাহের সভার আগে ইন্টারনেট বন্ধ করার অভিযোগ, রাজ্যপালের দ্বারস্থ বিজেপি

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: লক্ষ্য একটাই ২১শে বাংলা। সেই লক্ষ্যপূরণে একধাপ এগোতেই আজকের ভার্চুয়াল জনসভা। মঙ্গলবার অমিত শাহের ভার্চুয়াল সভার আগে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ তুলল গেরুয়া শিবির। এদিন বিষ্ণুপুরের সাংসদ তথা রাজ্য বিজেপির যুব মোর্চা সভাপতি সৌমিত্র খাঁ রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের কাছে গিয়ে এ নিয়ে অভিযোগ জানান। বিজেপির অভিযোগ, সাধারণ মানুষ যাতে ভার্চুয়াল সভায় অংশ নিতে না পারেন তার জন্য বহু জায়গায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সৌমিত্র খাঁ বলেন, বিজেপি শহিদ মিনারে সভা করলে জেলায় জেলায় বাস আটকে দেওয়া হয়। আর ভার্চুয়াল সভায় ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ হুঁশিয়ারির সুরে বলেন, এ ভাবে বাংলায় বিজেপিকে আটকানো যাবে না। এদিন রাজভবনে গিয়ে বিজেপি প্রতিনিধি দল জানিয়েছে জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, দুর্গাপুরের মতো বিভিন্ন জায়গায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যদিও এ ব্যাপারে তৃণমূলের তরফে বলা হয়েছে, বিজেপি মিথ্যে অভিযোগ করছে। ইন্টারনেট কোথাও বন্ধ করা হয়নি।

আরও পড়ুন: কতজনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশ হয়নি সেই প্রশ্ন তুলে বিঁধলেন মুখ্যমন্ত্রীকে বিঁধলেন রাজ্যপাল

পশ্চিমবঙ্গের জনতার উদ্দেশে আজ বেলা ১১টায় দিল্লি থেকে অনলাইনে ভাষণ দেওয়ার কথা অমিত শাহের। ভার্চুয়াল এই সভার নাম দেওয়া হয়েছে ‘জনসংবাদ র‌্যালি’। এই উপলক্ষে সফটওয়্যারের মাধ্যমে রাজ্যের দু’ হাজার নেতাকর্মীকে যুক্ত করা হবে। থাকবেন রাজ্য নেতৃত্ব-সহ রাঢ় বঙ্গের অধিকাংশ বিজেপি নেতা-কর্মী। পাশাপাশি বিজেপির অন্যান্য জেলাসভাপতি, মণ্ডল সভাপতিরাও অনলাইনে হাজির থাকবেন এই জনসভায়। বিজেপির উদ্দেশ্য, সামাজিক দূরত্ব মেনে বিভিন্ন পার্টি অফিস-সহ অন্যান্য জায়গায় ফেসবুক লাইভ করা। এ ভাবে প্রায় দু’লক্ষ মানুষের যোগদান করানো সম্ভব হবে বলে আশা বিজেপি নেতৃত্বর। কিন্তু সেই উদ্দেশ্য ব্যাহত করতেই ইন্টারনেট ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিঘ্নিত করার চেষ্টা চলছে বলে বিজেপি-র অভিযোগ। যাতে শাহের সভা চলাকালীন এই দু’টি পরিষেবা রাজ্যজুড়ে স্বাভাবিক ও নিরবচ্ছিন্ন থাকে, সে বিষয়ে রাজ্যপালের হস্তক্ষেপ চাওয়া হবে।

 

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close