fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খদেশ

নতুন দল গড়ার ঘোষণা অমরিন্দর সিংয়ের, গাঁটছড়া বাঁধতে চলেছেন বিজেপির সঙ্গে!

নিজস্ব প্রতিনিধি:  যত কাণ্ড পাঞ্জাবে! সেখানকার রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিত্যনতুন বাঁক নিচ্ছে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে। পাঞ্জাবের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং (Amarinder Singh)  এবার নতুন দল তৈরি করে বিজেপির সঙ্গে জোট বাঁধতে পারেন বলে জল্পনা তুঙ্গে।

তিনি কংগ্রেস ছাড়ার পর থেকেই তাঁর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করার পর অনেকেই মনে করেছিলেন তিনি বিজেপিতে যোগ দেবেন। কিন্তু সেই সম্ভাবনা নস্যাৎ করে দিয়েছিলেন তিনি। এরপরই শোনা যায় তিনি নতুন দল তৈরি করতে চলেছেন।  অবশেষে অমরিন্দর সেই গুঞ্জনকে সত্যি প্রমাণিত করলেন। সাফ জানিয়ে দিলেন, রাজ্যের আগামী বিধানসভা নির্বাচনের আগেই নিজের দল তৈরি করবেন তিনি। আর সেই দল গাঁটছড়া বাঁধতে পারে বিজেপির সঙ্গে। অমরিন্দরের এই ঘোষণার পর থেকেই আলোড়ন পড়ে গিয়েছে পাঞ্জাবে।

উল্লেখ্য, আগামী বছরের গোড়ার দিকে যে পাঁচটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন হবে, তার মধ্যে পাঞ্জাবে কংগ্রেসের জয় অনেকটাই সুনিশ্চিত ছিল বলে মনে করে রাজনৈতিক মহল। কিন্তু নিজের পায়ে নিজে কুড়ুল মেরে সেই রাজ্যে ছন্নছাড়া হয়ে গিয়েছে কংগ্রেস। তীব্র গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে কংগ্রেস হাইকমান্ড ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংকে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে সরিয়ে দেয়। কিন্তু এরপরেও সমস্যার সমাধান হয়নি। পাঞ্জাব প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পদে থাকতে চাননি নবজ্যোত সিং সিধু। উল্লেখ্য সিধুর সঙ্গে অমরিন্দরের বিবাদের জেরেই কংগ্রেস সেই রাজ্যে কার্যত আড়াআড়ি ভেঙে গিয়েছে। তাই অমরিন্দরের নতুন দল গড়ার সিদ্ধান্তে নির্বাচনের আগে পাঞ্জাবে বড় ধাক্কা খেতে পারে কংগ্রেস। অমরিন্দরের প্রধান পরামর্শদাতা রবিন ঠাকুরাল জানিয়েছেন, ”পাঞ্জাবের ভবিষ্যতের জন্য লড়াই চলছে, চলবে। শিগগিরি নতুন দল ঘোষিত হতে চলেছে পাঞ্জাব ও পাঞ্জাবের মানুষদের জন্য। বিশেষত আমাদের কৃষকদের জন্য, যাঁরা এক বছরেরও বেশি সময় ধরে নিজেদের অস্তিত্ব বাঁচানোর সংগ্রাম করে চলেছেন।”

২০২২ সালের বিধানসভা নির্বাচনে গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে গাঁটছড়া প্রসঙ্গে অবশ্য শর্ত রয়েছে অমরিন্দরের। যদি কৃষকদের ক্ষোভ মিটে যায় তাহলে বিজেপির সঙ্গে আসন সমঝোতার পথে হাঁটবে তাঁর দল। এমনকী, শিরোমণি অকালি দলের বিক্ষুব্ধদের সঙ্গেও জোট গড়ার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন তিনি। অর্থাৎ পাঞ্জাবে নাটক অব্যাহত। পরতে পরতে সেখানে পরিস্থিতির বদল ঘটছে। কংগ্রেস হাইকমান্ডের চাপে অমরিন্দর সিংয়ের ইস্তফার পর নতুন মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন চরণজিৎ সিং চন্নী। ঠিক সেই সময় অমরিন্দরের বিজেপি যোগের জল্পনা এবং তার মধ্যেই প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সিধুর ইস্তফাকে ঘিরে সরগরম হয়ে ওঠে পাঞ্জাবের রাজনীতি। তবে সরাসরি গেরুয়া শিবিরে না গিয়ে এবার নতুন দল করে তাদের সঙ্গে জোট গড়তে চলেছেন তিনি। সেই নতুন দলে কংগ্রেসেরও বহু নেতা যোগ দিতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। যদিও বিষয়টি নিয়ে বিজেপির কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

Related Articles

Back to top button
Close