fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাংলার মন বুঝতে বিশিষ্টজনেদের সঙ্গে বৈঠক করবেন অমিত শাহ

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: একুশের নির্বাচন কড়া‌ নাড়ছে। গেরুয়া শিবিরের কাছে এই নির্বাচন মরণ বাঁচন যুদ্ধ। আর সেই যুদ্ধের আগে বাংলায় বিজেপি এই লড়াইয়ে কতোটা তৈরি পরখ করতে দুদিনের সফরে রাজ্যে আসছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।গেরুয়া শিবিরের খবর, বাংলার মন বুঝতে কলকাতার ইজেডসিসিতে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীর প্রতিনিধিদের পাশাপাশি বিশিষ্টজনদের সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি।

সোমবার বিজেপির হেস্টিংস দফতরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরের প্রস্তুতি নিয়ে বৈঠক হয়। বৈঠকের পর রাজ্য বিজেপির সহ-সভাপতি প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ আগামী ৫ তারিখ বাঁকুড়ায় রাঢ়বঙ্গ ও মেদিনীপুর জোনের বৈঠক। ৬ তারিখ কলকাতার ইজেডসিসিতে কলকাতা ও নবদ্বীপ সাংগঠনিক জোনের বৈঠক। মোট ১৩ টি জেলার জেলা সভাপতি, বিধানসভার ইনচার্জ, সাধারণ সম্পাদকদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। সকাল সাড়ে ১০ টাতে বৈঠক শুরু হবে। এরপর তিনি মধ্যাহ্ন ভোজনের জন্য হোটেলে ফিরে যাবেন। মধ্যাহ্ন ভোজনের পর আবার বিকেল ৩ টে থেকে ৪ টা পর্যন্ত সমাজের বিভিন্ন শ্রেণী যেমন- কামার,কুয়োর, ছুতোর, জেলে, এঁদের প্রতিনিধি ও সমাজের বিশিষ্ট জনদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। করোনা বিধি মেনে বৈঠকে মাত্র ২০০ জনের প্রবেশাধিকার থাকবে।’

সূত্রের খবর, সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীর প্রতিনিধিদের কাছে লকডাউন পর্বে তাঁরা কেমন ছিলেন, কেন্দ্রীয় সরকারের আর্থিক প্যাকেজ কতোটা সহায়ক হয়েছে, আর কি ধরনের সহায়তা দরকার জানতে চাইতে পারেন। রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে বিশিষ্টজনেদের মতামতও‌ জানতে চাইতে পারেন। প্রত্যেক দিন রাজ্যে বিজেপি কর্মীরা খুন হচ্ছেন। রাজ্য বিজেপির নেতৃত্ব সরাসরি বলছেন রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসনের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। রাজ্যপালও সম্প্রতি রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা সম্পর্কে নেতিবাচক রিপোর্ট দিয়েছেন। স্বাভাবিক ভাবেই বিশিষ্টজনদের কাছে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে জানতে চাইতে পারেন অমিত শাহ। ব্যারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং সেই সম্ভাবনা উস্কে দিয়ে বলেন, ‘অমিতজি দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী। রাজ্যে প্রতিদিন বিজেপি কর্মীরা খুন হচ্ছেন। স্বাভাবিক কারণেই রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে ওঁর সঙ্গে আলোচনা হতেই পারে।’ বলাই বাহুল্য অমিত শাহের সফর ঘিরে তৃণমূল কংগ্রেসের স্নায়ুর চাপ বাড়ছে।

Related Articles

Back to top button
Close