fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আমফানের দাপটে গৃহহীন, সরকারী সাহায্য না পেয়ে প্রতিবেশী বাড়িতে আশ্রয় দম্পতি

নিজস্ব প্রতিনিধি, কাঁথি (পূর্ব মেদিনীপুর): আমফানে ঝড়ে বাড়ি উড়ে গিয়েছে বহুদিন আগে। তারপর একটানা বৃষ্টিতে বাড়ির অবশিষ্ট অংশ মাটির সঙ্গে মিশে গিয়েছে। তাই সর্বহারা হয়ে সরকারী সাহায্য না পেয়ে প্রতিবেশী বাড়িতে আশ্রয় নিলেন এক দম্পওি।দীর্ঘদিন কয়েক মাস ধরেই প্রতিবেশীর বাড়িতে রয়েছেন তারা। অথচ সরকারী সাহায্য নেই। গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে ব্লক সর্বএ বারে বারে আবোদন জানিয়েও আমফান ঝড়ের ক্ষতিগ্রস্ত্র দম্পওি কানাকুড়িও সরকারী সাহায্য পায়নি। কিন্তু কোন লাভ হয়নি। অবশেষে কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের বিডিও দ্বারস্থ হয়েছেন। কিন্তু এতেই সুফল হয়নি।

ঘটনাটি প্রকাশ, কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের বামুনিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের ঝাওয়া গ্রামের জয়দেব নায়ক অত্যন্ত হত দরিদ্র পরিবার। বহু কষ্টের ধারদেনা করে এক মেয়ের বিয়ে দেন তিনি। স্বামী-স্ত্রী কোনরকমে দীন মজুরি করে দিনযাপন করতেন। গত তিন মাস আগে আম্ফান ঝড়ের বাড়ির চালা উড়ে যায়। তারপরে সামান্য বৃষ্টিতে বাড়িটি ঝুলিসাত হয়ে যায়। এরপর গৃহহীন হয়ে পড়ে জয়দেববাবু। কয়েকদিন এদিক ওদিক ঘুরে বেড়িয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে ব্লক, সরকারি দফতর দরজা কড়া নাড়িয়েও কোন সাহায্য না পেয়ে অবশেষে প্রতিবেশীর দ্বারস্থ হয় জয়দেব নায়ক৷ শেষ পর্যন্ত প্রতিবেশীরকে ধরে কোনো রকমের বাড়ির এক কোনে জায়গা পেয়েছেন তিনি।এমত অবস্থায় দিশেহারা জয়দেব বাবু সংবাদপত্রের সাংবাদিকদের কাছে পেয়ে নিজের ক্ষোভ উগরে দেয়।

আরও পড়ুন: আগামীদিনকে স্বাগত জানিয়ে পুজোর মুখে শিশুদের হাতে নতুন বস্ত্র তুলে দিল ‘অনুভব’

চোখের জলে কাঁদতে কাঁদতে জয়দেব নায়ক অভিযোগ করে বলেন আমফান ঝড়ের বাড়ির কিছুটা চালা উড়ে গিয়েছিল। এরপর সামান্য বৃষ্টিতে বাড়ির পুরো অংশ মাটিতে মিশে গিয়েছে। এনিয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে বিডিও অফিস ব্লক প্রশাসন একাধিক সরকারি দফতরে জানিয়েও কোনো সরকারি সাহায্য পাননি। অবশেষে স্ত্রীকে নিয়ে প্রতিবেশীর বাড়িতে রয়েছেন। ঘটনার সত্যতা জানতে এলাকার তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য অঞ্জনা এিপাটি ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন  পঞ্চয়েতে কাগজ পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কেন পেল না তা জানা নেই। কিছু সময় পরে ওই পঞ্চায়েত সদস্য স্বামী প্রতিবেদককে ফোন করে তার সঙ্গে রুড় ব্যাবহার করেন।  যদিও কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের বিডিও মনোজ মল্লিক বলেন বহু মানুষ আবেদন করেছিলেন। কিন্তু জয়দেব বাবুর বিষয়টি জানা নেই৷ বিষয়টি তিনি খোঁজ খবর নিয়ে দেখবেন। কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি তরুণ জানা বলেন বিষয়টি নজরে আছে। সরকারী সাহায্য পান তা ব্যাবস্থা করছেন।

 

Related Articles

Back to top button
Close