fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কাটোয়ায় আমফানের ক্ষতিপূরণে অনিয়ম, ৪টি পাকা বাড়ির মালিকের অ্যাকাউন্টে অনুদানের টাকা

দিব্যেন্দু রায়, কাটোয়া: এবার কাটোয়াতেও আমফানের ক্ষতিপূরণ বিলিতে অনিয়মের ঘটনা ঘটল। পাকা বাড়ি থাকা সত্ত্বেও ক্ষতিপূরণের ২০ হাজার করে টাকা ঢুকেছে কাটোয়া পুরসভার ১৪ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার পঞ্চবটিপাড়ায় চারজনের ব্যাঙ্ক আ্যাকাউন্টে। এদিকে এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই শাসকদলের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছে বিজেপি। বিজেপির পূর্ব বর্ধমানের সাংগঠনিক কাটোয়া জেলার সাধারন সম্পাদক অনিল দত্ত বলেন, ‘তৃণমূলের নেতারা কাটমানি নিয়ে ক্ষতি পূরণের টাকা বিলি করছে। এই ঘটনাই তার প্রমান । ফলে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তরা সরকারি অনুদান থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন ।’ অন্যদিকে কাটোয়া পুরসভার ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূলের বিদায়ী কাউন্সিলর ইলা হাজরার বলেন, “ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আগে খতিয়ে দেখা হয়। তখনই হয়ত কিছু গণ্ডগোল হয়েছে। তবে ওরা আমায় জানিয়েছে টাকা ফেরত দিয়ে দেবে।”

আরও পড়ুন: যুবতীর অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য মন্তেশ্বরে

আমফান ঝড়ে ক্ষতির কারণে কাটোয়া পুরসভা এলাকায় মোট ৬৩ জনকে ক্ষতিপূরন দেওয়া হয়েছে বলে পুরসভা সুত্রে জানা গেছে। তাদের মধ্যে কিছু আংশিক এবং বাকিরা পূর্ন ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন। জানা গেছে, কাটোয়ার পঞ্চবটি পাড়ার ৪ জনের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পুর্ন ক্ষতিপূরণ বাবদ ২০ হাজার টাকা করে ঢুকেছে। ওই চারজনেরই পাকা বাড়ি রয়েছে। আমফানে বিশেষ ক্ষয়ক্ষতিও হয়নি বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। তা সত্ত্বেও ওই চারজনের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পূর্ণ ক্ষতিপূরণের টাকা ঢোকায় প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে এলাকায়। যদিও বিষয়টি নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হতেই পঞ্চবটি পাড়ার ওই চার গৃহকর্তা বিদায়ী কাউন্সিলরের কাছে গিয়ে টাকা ফেরত দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। বৃহস্পতিবার মহকুমাশাসকের দফতরে গিয়ে তাঁদের টাকা ফেরত দেওয়ার কথা হয়েছিল। কিন্তু তাঁদের ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে টাকা ফেরত দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। ওই চার উপভোক্তাদের মধ্যে ভগবতী হাজরা, বিনয় হাজরারা বলেন, “আমরা আংশিক ক্ষতিপূরণের জন্য আবেদন করেছিলাম। কিন্তু ভুল করে পূর্ন ক্ষতিপূরণের অনুদান চলে এসেছে। আমরা টাকা ফেরত দিয়ে দেব।”

Related Articles

Back to top button
Close