fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পরোপকার করতে গিয়ে নিজেরই ফুটপাতে বাস ৭৮ বছরের বৃদ্ধার

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: পরোপকার করতে গিয়ে নিজেরই বাস হল ফুটপাতে। ঘটনাটি ঘটছে বাগুইআটি ভিআইপি এলাকায়। এনক্লেভ এর বাসিন্দা ঊষা সভারওয়াল, জীবনের শেষ প্রান্তে এসে প্রতারণার ফাঁদে পড়ে নামি আবাসন ছেড়ে আজ এই বৃদ্ধার স্থায়ী ঠিকানা হয়েছে ভিআইপি রাস্তার ধারে ফুটপাত ও সাবওয়েতে। দিনের বেলা ফুটপাতের ধারে বা চায়ের দোকানের পাশে আস্তানা নেন এই বৃদ্ধা, যদি কোন সহৃদয় ব্যক্তির মনে মায়া হয় তাহলে দুমুঠো অন্ন জোটে, আবার কোন কোন দিন তাও জোটে না। আর রাতে নিরাপদ আস্তানা বলতে গেলে সাবওয়ের সিঁড়ির নিচে মাদুর পেতে সেখানেই রাত কাটানো। বিষাক্ত পোকামাকড় ঘুরে বেড়াচ্ছে সব কিছুর উপেক্ষা করে রাত গুজরান করতে হচ্ছে অসহায় বৃদ্ধাকে।

তিনি জানান, পাড়ার দু-একজন ছেলে তারা সময় মতো খোঁজ খবর নেন, মাঝে মধ্যে কিছু খাবারের বন্দোবস্ত করে দেন। এমন অবস্থায় দিন কাটছে এই বৃদ্ধার। তার অভিযোগ তার স্বামী মারা যাওয়ার পর এই আবাসনের এক পরিবারের সঙ্গে তার সখ্যতা ছিল তাদের নাম সুনীল শেট্টি, ও রুপা শেট্টি। এই শেট্টি পরিবারটি এই আবাসনে ভাড়া থাকতেন। বৃদ্ধা ওই পরিবারকে জানান যে তাদের ভাড়ায় থাকতে হবে না, তারা যদি ইচ্ছা করে এই বৃদ্ধার সঙ্গে ফ্ল্যাটে থাকতে পারে এবং সম্ভব হলে মাতৃতুল্ল বৃদ্ধার দেখাশোনা করতে পারে।

বৃদ্ধার অভিযোগ অনুযায়ী এই শেট্টি পরিবারকে উপকারের বিনিময় তিনি নিজের জীবনে বিপদ ডেকে এনেছেন। সুনীল শেট্টি কে তিনি নিজের ফ্ল্যাটে থাকতে দিতে চেয়ে ছিলেন সেই সুনীল শেট্টি ও তার পরিবার তাকে ফ্ল্যাট বিক্রি করতে বাধ্য করে এবং সেই ফ্ল্যাট বিক্রির টাকা ধাপে ধাপে ব্যাংকের থেকে চেকের মাধ্যমে বৃদ্ধার অ্যাকাউন্ট থেকে নিজের একাউন্টে বলপূর্বক ট্রানস্ফার করিয়ে নেন, এমনই অভিযোগ ওই বৃদ্ধার।

তিনি আরও জানান, তাকে ঘর থেকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে তাকে বাইরে বের করে দেন। বৃদ্ধা জানান যে সপ্তাহ খানেক আগে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে পুলিশি ডায়েরি করেন তবে এখনও পর্যন্ত প্রশাসনের তরফে কোনরকম সহযোগিতার আশ্বাস পাননি। বিচার পাওয়ার আশায় আজও ভিআইপি রাস্তার ধারে কোন এক প্রান্তে চাতক পাখির মতো চেয়ে রয়েছে বৃদ্ধার চোখ দুটি, সুদিনের অপেক্ষায়।

Related Articles

Back to top button
Close