পশ্চিমবঙ্গ

হাসপাতাল বন্ধের নোটিশ প্রত্যাহার করে নিল আনন্দলোক কর্তৃপক্ষ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আনন্দলোক হাসপাতাল বন্ধের নোটিশ প্রত্যাহার করে নিল কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার হাসপাতালের মালিক জানান, সরকারের প্রতিনিধিদল তাঁর সঙ্গে দেখা করেন। তাতেই সমাধান সূত্র বেরিয়ে আসে।

হাসপাতালের কর্মী সংগঠনের দুই নেতৃত্বের বিরুদ্ধে আর্থিক তছরুপের অভিযোগ ছিল, তাদের বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত হতেই হাসপাতাল বন্ধের নোটিশ প্রত্যাহার করে নেন মালিক দেব কুমার সরাফ। সোমবার আনন্দলোক হাসপাতাল বন্ধ করে দেওয়ার নোটিশ দেওয়া হয়। বছর শুরুর প্রথম দিন থেকেই এই হাসপাতাল বন্ধ করে দেওয়া হবে এমনটাই নোটিশ ঝুলিয়ে দেন হাসপাতালের মালিক ডি কে সরাফ। তাঁর দাবি কর্মচারি সংগঠনের দুই নেতৃত্ব হাসপাতালের টাকা তছরূপ করছে। সেই কারণেই এই পদক্ষেপ গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই বিষয়ে ডি কে সরাফ বলেন, “আনন্দলোক হাসপাতালে মোট ১১ টি ব্রাঞ্চ আছে। সব ব্রাঞ্চগুলোতে সুস্থভাবে কাজ হচ্ছে। তবে সল্টলেকের আনন্দলোক ব্রাঞ্চে গত ছয় মাস ধরে হাসপাতালের কর্মচারীরা চুরি-চামারি করছে । হাসপাতাল থেকে বিভিন্ন মেডিসিন চুরি করে অনেকেই মেডিসিনের দোকান খুলে ফেলেছেন। এবং তাতে প্রায় ৫ কোটি টাকা মত ক্ষতি হয়ে গিয়েছে”। অন্যদিকে হাসপাতালের কর্মচারী সংগঠন জানিয়েছে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষই আর্থিক তছরুপ করছে। সেই কারণেই বর্তমানে তাঁরা কর্মীদের মাইনে না দিয়ে হাসপাতাল বন্ধ করে দেওয়ার চক্রান্ত শুরু হয়েছে।

অন্যদিকে হাসপাতালের কর্মচারি সংগঠনের পক্ষ থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে এই হাসপাতালের কর্তৃপক্ষই আর্থিক তছরুপ করেছে। সেই কারণেই বর্তমানে তারা কর্মিদের মাইনে না দিয়ে হাসপাতাল বন্ধ করে দেওয়ার চক্রান্ত শুরু হয়েছে। এই ঘটনার প্রতিবাদে হাসপাতালের কর্মীরা সোমবার রাতে করুনাময়ী থেকে মৌন মিছিল করে বিধাননগর পূর্ব থানায় একটি স্মারক লিপি জমা দেন।

sweta

Related Articles

Back to top button
Close