fbpx
দেশহেডলাইন

অনলাইন গেমিং-বেটিং-জুয়া ব্যান করল অন্ধ্রপ্রদেশ সরকার

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: বড়সড় সিদ্ধান্তের পথে হাঁটল অন্ধ্রপ্রদেশ সরকার। যে কোনও ধরনের অনলাইন গেমিং, অনলাইন বেটিং ও জুয়া নিষিদ্ধ করল অন্ধ্রপ্রদেশ সরকার। জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার এই মর্মে সরকারি নিষেধাজ্ঞা আরোপ হয়েছে। এ ছাড়া ১৩২টি ওয়েবসাইট ও অ্যাপের একটি তালিকা তৈরি করে কেন্দ্রের কাছে পাঠানো হয়েছে। উল্লিখিত সাইট ও অ্যাপগুলির অ্যাকসেস রাজ্যে বন্ধ করতে কেন্দ্রের সহযোগিতা চেয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ সরকার।

ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারকে কেন্দ্র যাতে এই মর্মে নির্দেশ দেয়, অন্ধ্রপ্রদেশ সরকারের চিঠিতে তেমনই আর্জি রয়েছে। ভারতের প্রথম রাজ্য হিসেবে এমন পদক্ষেপ করল অন্ধ্রপ্রদেশ সরকার। নিষেধাজ্ঞার তালিকায় রয়েছে Paytm ফার্স্ট গেম, মোবাইল প্রিমিয়ার লিগ (Mobile Premier League) ও Adda 52।

  আরও পড়ুন: ২০২০-র ডিসেম্বরের মধ্যেই তৈরি হয়ে যাবে কোভিশিল্ড, জানাল সিরাম ইনস্টিটিউট

সূত্রের খবর, অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ওয়াই এস জগনমোহন রেড্ডি আইটি ও টেলিকম মন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদকে গত ২৭ অক্টোবর একটি চিঠি লিখেছেন। তাতে ওয়াই এস জগনের উদ্বেগ ধরা পড়েছে। অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রী চিঠিতে উল্লেখ করেন, বাড়িতেই বসেই হাতের স্মার্ট ফোন ও কম্পিউটার থেকে অল্পবয়সিরা অনলাইন গেমিং, বেটিং, জুয়ায় আসক্ত হয়ে পড়ছে। এই ধরনের অনলাইন গেম-জুয়া-বেটিংয়ের কারণে যুবসমাজের ভয়ানক ক্ষতি হচ্ছে। ওই চিঠিতেই ১৩২টি ওয়েবসাইট ও অ্যাপের উল্লেখ করে অ্যাকসেস বন্ধ করতে রবিশংকরের কাছে আর্জি জানিয়েছেন জগন।

রেড্ডি চিঠিতে প্রসাদকে জানান, রাজ্য ‘এপি গেমিং আইন ১৯৭৪’ সংশোধন করেছে। সংশোধিত আইন (অন্ধ্রপ্রদেশ সংশোধন অধ্যাদেশ ২০২০)-এ অনলাইন গেমিং, অনলাইন জুয়া এবং অনলাইন বেটিংকে অপরাধ হিসাবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ২০২০ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর এই মর্মে একটি বিজ্ঞপ্তিও জারি করে অন্ধ্রপ্রদেশ সরকার।

  আরও পড়ুন: লক্ষ্মীপুজোর কেনাকাটায় ব্যাপক ভিড় বাজারে, মূর্তি ও ফলের দাম আকাশছোঁয়া

এ বিষয়ে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আইন সংশোধনের মূল লক্ষ্যই হল অনলাইন গেমিং, অনলাইন বেটিং ও অনলাইন জুয়া রাজ্যে নিষিদ্ধ করা। সংশোধিত আইনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হবে। অনলাইন গেমিং সংস্থাগুলির ম্যানেজিং ডিরেক্টর বা যাঁরা এ ধরনের সংস্থা চালাচ্ছেন, নয়া আইনে তাঁদের বিরুদ্ধেও আইনি পদক্ষেপ করার কথা বলা হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, অনলাইন গেম, জুয়া, বেটিংয়ের কারণে রাজ্যে আত্মহত্য়ার ঘটনা বাড়ছে। মোটা টাকার আর্থিক ক্ষতির দরুন অনেকেই চূড়ান্ত পরিণতির দিকে পা বাড়াচ্ছেন। এই ধরনের অনলাইন গেমে ভয়ানক আসক্তির কারণে হিংসাত্মক আচরণের ঘটনাও বাড়ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। রেড্ডি জানান, একের পর এক ঘটনাই তাঁকে বাধ্য করে এই কঠোর পদক্ষেপে।

Related Articles

Back to top button
Close