fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আনিস হত্যারহস্য! ফের বাধা, দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের জন্য দেহ তুলতে দিল না স্থানীয়রা

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্কঃ আনিস খুনে উত্তপ্ত বাতাবরণ। এখনও রহস্যে জট কাটল না। গতকালই টি আই প্যারেডের জন্য আনিসের বাবা সালেম খানকে নিয়ে যাওয়া হয় উলুবেড়িয়া জেলে। সেখানে প্রায় আড়াই ঘন্টা ধরে টি আই প্যারেড চলে। কিন্তু কাউকেই চিনতে পারেননি নিহত ছাত্রের বাবা। সকাল থেকেই সিট-এর সদস্যরা আমতায় ছাত্র নেতার বাড়িতে উপস্থিতি হন। পরিবারে সঙ্গে কথা বলেন। কিন্তু আনিসের বাবা স্পষ্ট জানিয়ে দেন, তিনি পুলিশের গাড়িতে যাবেন না। পরে তার আইনজীবী আসতে তিনি তার গাড়িতেই রওনা দেন। এদিকে দীর্ঘক্ষণ টি আই প্যারেড চলার পর সালেম খানের আইনজীবী জেলে বাইরে এসে সাংবাদিকদের জানান, কাউকেই চিনতে পারেননি সালেম খান। ঘটনার দিন রাতে যারা বুকে বন্দুক ঠেকিয়ে ছিল এরা তারা নয়।

এদিকে ইতিমধ্যেই আনিসের দেহ দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের জন্য নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। কিন্তু শনিবার ভোরে থেকে সেই দেহ তুলতে গিয়ে বাধা বিপত্তি। এমনিতে আনিস খুনে উত্তপ্ত হয়ে আছে। দেহ তুলতে গিয়ে ঘটনায় আরও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ল। ফের স্থানীয়দের বাধার মুখে পড়লেন পুলিশকর্মীরা। আনিসের দেহ ময়নাতদন্ত করার জন্য তাঁর বাড়িতে অনুমতি চাইতে যায় পুলিশ সেই সময় ছাত্রনেতার বাবা জানান, সোমবার সকালে আসতে তাঁরা সহযোগিতা করবে তবে এসডিপিও আমতা রাতেই পৌঁছান আনিসের বাড়িতে সঙ্গে পৌঁছান পুলিশ তবে গ্রামের বাসিন্দারা দেহ তুলতে দেয়নি এমনটাই বলছে পুলিশ

স্থানীয়দের তরফে বলা হয় এই দেহ কোনও ভাবেই ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া যাবে না। দেহ তুলতে হলে আনিসের পরিবারের সম্মতি লাগবে। বিনা অনুমতিতে দেহ কোনও ভাবেই তুলে নিয়ে যাওয়া যাবে না। খালি হাতেই ফিরতে হল সিটের সদস্য ও বিডিওকে।

এক এলাকাবাসী বলেন, “আনিসের বাবা সিটের সদস্য আইনজীবীকে তারা সোমবার সকালে দেহ নিয়ে যাক। পরিবার সহযোগিতা করবে। তিনি লিখিতও দিয়েছেন তাহলে আজকে ভোরবেলা কেন বিডিও এসে মৃতদেহ তুলতে গেলেন। যখন কথা হয়েই গেছে তাহলে ফের কেন পুলিশ নিয়ে হাজির হয়েছেন? তাই আমরা ফিরিয়ে দিয়েছি। এটাকে চুরি করা বলে বিডিও মৃতদেহ চুরি করতে এসেছে মরদেহ আর ওদের হাতে তুলে দেওয়া যাবে না সিবিআই তদন্ত চাই’।

Related Articles

Back to top button
Close