fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণদেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দেশবিরোধী শক্তি আজ আস্তানা গেড়েছে বাংলায়

রক্তিম দাশ, কলকাতা: দেশবিরোধী শক্তি আস্তানা গেড়েছে বাংলায়। এই ব্যাধি থেকে বাংলাকে মুক্ত করতেই বিজেপির ক্ষমতায় থাকা দরকার। বক্তা দিলীপ ঘোষ। বিশ্বের নানা দেশের বিভিন্ন বাঙালি হিন্দু সংগঠনের নেতৃত্বের ভার্চুয়াল মিডিয়ায় অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় অংশ নিয়ে বঙ্গ বিজেপি সভাপতি দিলীপবাবু একইসঙ্গে জানিয়ে দিলেন, একুশে বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় এলে বাংলাদেশের হিন্দুরাও সুরক্ষিত থাকবেন।

বাংলা বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে দিলীপ ঘোষ বলেন,‘ আপনারা যাঁরা বিদেশে বসবাস করছেন তাঁরা আমাদের পরিবারেরই অংশ। আমরা করোনা আর আমফানের মতো মহামারী এবং দুর্যোগের সঙ্গে লড়ছি। এই প্রতিকূলতার মধ্যে আমাদের দল যথাসাধ্য চেষ্টা করছে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর। লকডাউনের কারণে আমাদের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড স্থিমিত নেই। ইন্টারনেট ব্যবহার করে আমরা প্রতিদিনই ভার্চুয়াল সভা করছি। দেশের বাইরেও বিভিন্ন সংগঠনের এই ধরণের আমি ৫-৬টা সভায় অংশ নিয়েছি ইতিমধ্যেই। আসলে বাঙালির কাছে রাজনীতি একটা নেশার মতো।’

আরও পড়ুন:ফের বড়সড় দুর্ঘটনা বিহারে, ট্রেনের সঙ্গে গাড়ির ধাক্কায় নিহত ৩

বাংলায় পরিবর্তন আসছে বলে দাবি করে দিলীপবাবু বলেন,‘একুশের পরিবর্তন আসছে। তবে এটা শুধু ক্ষমতা পরিবর্তন নয়, সমাজের পরিবর্তনও বটে। আমি বলেছি, বদল হবে, বদলাও হবে। এটা নিয়ে এখন চর্চা হচ্ছে। আমাদের এত নেতা-কর্মী খুন হচ্ছে বাংলায়। এর প্রতিকার হবে না? এই আক্রমণের বদলা হবে না? যেখানেই অন্যায় হচ্ছে সেখানেই বিজেপি লড়ছে। তাই মানুষ আমাদের নিয়ে ভাবছে। এবার পরিবর্তন আসছেই। ১৯-এ হাফ আর একুশে সাফ সেই পথেই এগোচ্ছে বাংলা। পুলিশ মারছে, তৃণমূল মারছে আর আমাদের কর্মীদের মনোবল বাড়ছে। আর এসব দেখে অন্যদল থেকেও মানুষ আসছেন।’

বাংলার বুদ্ধিজীবীদের একাংশ এখন বিজেপির প্রশ্নে নাক উঁচু মনোভাব পোষণ করে বলে মনে করেন এই সাংসদ।

তিনি বলেন,‘ এত অন্যায় অত্যাচারের পর এখন তাঁরা চুপ করে বসে আছেন। তাঁরও কিন্তু বুঝতে পারছেন বাংলায় পরিবর্তন আসন্ন। আসলে স্বাধীনতার পর থেকেই আমরা সবচেয়ে কনফিউজড। আমাদের শিক্ষার মান নেমেছে। প্রতিভা বিকাশের সুযোগ কমে যাচ্ছে। শিল্পের সার্বিক পতন হয়েছে। এসব ঠিক করে আবার সঠিক রাস্তায় আনতে হবে আমাদের। বিশ্বও দরবারে বাঙালির সংস্কৃতির কথা বলতে হবে।’

আরও পড়ুন:কেরলে গোষ্ঠী সংক্রমণের আশঙ্কা! জানালেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী

প্রবাসীদের প্রতি দিলীপবাবু বলেন, ‘আপনাদের বিজেপির প্রতি আগ্রহ আমাদের প্রেরণা দিচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গে যেদিন আমরা ক্ষমতায় আসব সেদিন বিজেপি সমগ্র ভারত জিতে যাবে। কারণ দেশ বিরোধীদের সবচেয়ে বড় আড্ডা পশ্চিমবঙ্গে। সঠিক ভাবে অমিত শাহ বলেছেন, সারা ভারতে বিজেপি জিতলেও বাংলায় না জিতলে আমাদের এগিয়ে যাওয়ার পথ অসম্পূর্ণ থাকবে’।
এই আলোচনায় সভায় বাংলাদেশের হিন্দু নির্যাতন নিয়ে বিজেপির সবর হওয়ার দাবি জানানো হয়। সভায় উপস্থিত প্রিয়া সাহা বলেন, ‘আপনাদের দিকে আমরা তাকিয়ে আছি। বাঙালি হিন্দুরা আজ সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ।’ টরন্টোর বাংলাদেশ হিউম্যান রাটস অ্যাল্যায়েন্সের পক্ষ থেকে অরুণ দত্ত দাবি জানান, ‘বাংলাদেশি হিন্দুদের দ্বি-নাগরিকত্ব দিক ভারত সরকার। এর পাশাপাশি তাঁদের ভারতে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট করার সুযোগ দেওয়া হোক।’

আলোচনায় অংশ নেন সাংবাদিক ও মানবধিকার আন্দোলনের নেতা শিতাংশু গুহ, বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী সহ বিশ্বের ৩৫টি দেশের হিন্দু বাঙালি সংগঠনের নেতারা।

Related Articles

Back to top button
Close