fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

লন্ডন থেকে মালদায় ফেরা পরিযায়ী শ্রমিকদের ডাক্তারি পরীক্ষা না করেই বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা!

মিল্টন পাল,মালদা: করোনা সংক্রমণের জেরে লন্ডনে আটকে থাকা শ্রমিকরা মালদায় ফিরলেন। এদিন ওই বিশেষ ট্রেনে প্রায় দেড় হাজার পরিযায়ী শ্রমিক ছিল। সোমবার সকাল দশটায় মালদা টাউন স্টেশনে পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে ফেরার পর পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তাদের তদারকিতেই ভিন রাজ্য ফেরত ওইসব পরিযায়ী শ্রমিকদের সরকারি বাসে করে বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়। তবে এদিন ভিন রাজ্য ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকদের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি। এমনকী শারীরিক পরীক্ষার কোনও ব্যবস্থা করা হয় নি বলে অভিযোগ। যা নিয়ে বিভিন্ন মহলে উদ্বেগ এবং আতঙ্ক বাড়িয়েছে ।

যদিও জেলা প্রশাসনের এক কর্তা জানিয়েছেন, যেহেতু মালদায় ব্যাকলগের সংখ্যা ক্রমাগত বেড়েছে। তাই এই মুহূর্তে ভিন রাজ্য ফেরত শ্রমিকদের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা যাচ্ছে না। তাদেরকে নিজেদের জেলায় পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রশাসনের মাধ্যমে সেখানেই হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট এলাকার পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তারা এব্যাপারে তদারকি করে দেখবেন।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন সকালে হায়দরাবাদে থেকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনটি ১৪৯২ জন যাত্রী নিয়ে মালদা টাউন স্টেশনে আসে। যাদের মধ্যে মালদা জেলার শ্রমিক ছিলেন ৪৭৭ জন। নদিয়া জেলার শ্রমিক রয়েছে ৮৫ জন। মুর্শিদাবাদ জেলার শ্রমিক রয়েছে ২৪৮ জন। উত্তর দিনাজপুরের শ্রমিক রয়েছে ৭৯ জন। দক্ষিণ দিনাজপুরের শ্রমিক রয়েছে ১২ জন। বীরভূমের শ্রমিক রয়েছে ৮ জন। এছাড়াও হাওড়া, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, দুই বর্ধমান এবং দুই মেদিনীপুর জেলার শ্রমিক রয়েছেন ৩১২ জন। মোট শ্রমিকের সংখ্যা ১২২১ জন । এর বাইরে যে ২৭১ জন শ্রমিক বাকি রইল, তারা কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং জেলার। তাদেরকে ওই ট্রেনে এনজিপি স্টেশনের উদ্দেশ্যে পাঠানো হয়েছে।

প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, ১৪৯২ জন পরিযায়ী শ্রমিকের মধ্যে মালদায় নেমেছে ১২২১ জন। বাকি ২৭১ জন নামবে এনজিপি স্টেশনে। মালদায় ১২২১ জন পরিযায়ী শ্রমিক নামার পর মোট ৩৩ টি সরকারি বাসে তাদের সংশ্লিষ্ট জেলায় ফেরানোর ব্যবস্থা করেছে পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তারা। কিন্তু এদিন কোনও শ্রমিকদেরই লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি। কাজেই কোন শ্রমিক কি ধরনের রোগ নিয়ে ভিন রাজ্য থেকে নিজেদের জেলায় ফিরছে, তা অবশ্য অজানাই থেকে গেল প্রশাসনের কাছে।

জেলা প্রশাসনের এক কর্তা জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে সোয়াব টেস্টের করার ক্ষেত্রে ব্যাকলগের সংখ্যা তিন হাজার ছাড়িয়েছে। সেগুলি আগে সম্পূর্ণ না করে ভিন রাজ্য ফেরত শ্রমিকদের এই মুহূর্তে লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা সম্ভবপর নয়।

এদিকে দিন সকাল থেকেই মালদা টাউন স্টেশনে পুলিশ প্রশাসনের জোর তৎপরতা ছিল। নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্যেই রেল পুলিশ থেকে শুরু করে জেলা পুলিশ ও প্রশাসনের নজরদারির মধ্যে পরিযায়ী শ্রমিকদের ট্রেন থেকে নামিয়ে সরকারি বাসে করে বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়।
জেলা শাসক রাজর্ষি মিত্র জানান, ৯৩০জনের নামার কথা ছিল এখানে। এদের অনেকের আসানসোলে নামার কথা ছিল। কিন্তু সেখানে তারা নামতে পারেনি। তাই অতিরিক্ত ৩২১জন এখানে নেমেছে। যার মধ্যে উত্তর দিনাজপুর পর্যন্ত লোক রয়েছে।

এতদিন এখানে লালারসর নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছিল। এখন অত্যাধিক মাত্রায় শ্রমিক আসার কারনে শুধুমাত্র স্ক্রিনিং করা হচ্ছে। এখন শুধুমাত্র দিল্লি, মহারাষ্ট্র, কর্নাটক ও গুজরাট থেকে আসা শ্রমিকদের লালারস সংগ্রহ করা হচ্ছে। এরপর ব্যাঙ্গালুরু থেকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন আসবে। সেখানেও মালদার শ্রমিক রয়েছে। এরপর স্বাস্থ দফতরের যা গাইড লাইন রয়েছে সেই নির্দেশ মাইকিং করা হচ্ছে। আরও বলে রয়েছে বাড়ি গিয়ে কি করা উচিত আর কি করা উচিত নয়। এই মুহূর্তে ৩৬টি বাসে শ্রমিকদের পাঠানো হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close