fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কন্যা সন্তানের জন্ম দেওয়ায় স্ত্রীকে ছুরি দিয়ে কোপানোর অভিযোগ, গ্ৰেফতার স্বামী

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: কন্যা সন্তানের জন্ম দেওয়া স্ত্রীকে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগে গ্ৰেফতার হলেন স্বামী। ধৃতের নাম শেখ কুতুবউদ্দিন। তার বাড়ি পূর্ব বর্ধমানের ভাতার থানার ভুমশোর গ্রামে। ভাতার থানার পুলিশ রবিবার সকালে তাকে ভাতার বাজার থেকে গ্ৰেফতার করে। ছুরিটি পুলিশ বাজেয়াপ্ত করেছে । এদিনই ধৃতকে পেশ করা হয় বর্ধমান আদালতে। ভারপ্রাপ্ত সিজেএম ধৃতকে বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠিয়ে আগামী সোমবার ফের আদালতে পেশের নির্দেশ দিয়েছেন। ধৃতের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছে বধূর বাবার বাড়ির সদস্যরা।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ভাতারের এরুয়ার গ্রামে বাবার বাড়ি বধূ আকশোনা বিবির। বছর দুই আগে ভাতারের ভুমশোর নিবাসী যুবক কুতুবউদ্দিনের সঙ্গে বিয়ে হয় আকশোনার। মাস তিন আগে বধূ একটি কন্যা সন্তানের জন্য দেয়। বধূর বাবা শেখ জিয়ার মহম্মদের অভিযোগ বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই আকশোনার উপর নির্যাতন চালানো শুরু করে তার জামাই কুতুবউদ্দিন। মেয়ে কন্য সন্তানের জন্ম দেবার পর থেকে নির্যাতন আরো বেড়ে যায়। নির্যাতন সীমা ছাড়ালে আকশোনা বাবার বাড়িতে চলে আসে।

জিয়ার মহম্মদ পুলিশকে জানিয়েছেন , কিছুদিন আগে সন্ধ্যায় দু’জনকে সঙ্গে নিয়ে কুতুবউদ্দিন তার বাড়িতে ঢুকে পড়ে। এরপর আচমকাই সে আকশোনাকে ছুরি দিয়ে কোপানো শুরু করে দেয়। ছুরির কোপে মারাত্মক জখম হয় আকশোনা। তার প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। তাঁকে প্রথম ভাতার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাঁকে স্থানান্তর করা হয় বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। তারই মধ্যে কুতুবউদ্দিন এলাকা ছেড়ে পালায়। এই গোটা ঘটনা উল্লেখ করে বধূর বাবা শেখ জিয়ার মহম্মদ ভাতার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। মামলা রুজু করে পুলিশ কুতুবউদ্দিনের খোঁজ চালানো শুরু করে। রবিবার সকালে সে পুলিশ হাতে ধরা পড়ে যায়।

Related Articles

Back to top button
Close