fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খদেশবিনোদন

জামিন পেলেন না আরিয়ান খান, আপাতত জেলেই থাকতে হবে শাহরুখ-পুত্রকে

নিজস্ব প্রতিনিধি: স্বস্তি এল না খান পরিবারে। মাদক-কাণ্ডে বুধবারও জামিন পেলেন না শাহরুখ খানের পুত্র আরিয়ান খান। তাই আপাতত জেলেই থাকতে হবে শাহরুখ- পুত্রকে। সেই সঙ্গে আরও দুই অভিযুক্ত আরবাজ মার্চেন্ট এবং মুনমুন ধমেচার জামিনের আবেদনও খারিজ হয়েছে এদিন।

গত ১৪ অক্টোবর আদালতে খারিজ হয়েছিল আরিয়ানের জামিনের আবেদন। সেদিন দীর্ঘ সময় ধরে শুনানি চলার পর স্থগিত রাখা হয় আরিয়ানের জামিনের শুনানি। এক সপ্তাহ পরে এদিন আরিয়ান খানের জামিন মঞ্জুর করবে আদালত, এমনটাই মনে করেছিলেন শাহরুখ তথা খান পরিবার। কিন্তু এদিনও জামিনের আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন বিচারক।

এদিন আদালতে শুনানি চলার সময় এনসিবি’র তরফ থেকে আরিয়ান খানের একটি হোয়াটস অ্যাপ চ্যাট সামনে আনা হয়। এক উঠতি নায়িকার সঙ্গে হোয়াটস অ্যাপে আরিয়ান মাদক নিয়ে লম্বা চ্যাট করেছেন। সেই চ্যাট আদালতে তুলে ধরেন এনসিবি’র আইনজীবী। এরপরই জামিনের আবেদন নাকচ হয়ে যায়।

উল্লেখ্য, গত ২ অক্টোবর রাতে মুম্বই থেকে গোয়াগামী একটি বিলাসবহুল প্রমোদতরী কর্ডেলিয়ায় রেভ পার্টি আয়োজনের খবর পান এনসিবি আধিকারিকরা। এরপর যাত্রী সেজে প্রমোদতরীতে ওঠেন তাঁরা। পার্টি শুরু হওয়ার পরই পুলিশ একে একে দশ জনকে আটক করে। মাদক-কাণ্ডে জেরা করা হয় আরিয়ান খানকেও। দীর্ঘ জেরার পর গ্রেফতার হন শাহরুখ-পুত্র।

এই খবরে স্বভাবতই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছিলেন শাহরুখ ও তাঁর স্ত্রী গৌরী খান। আইনজীবী সতীশ মানেশিন্ডেকে নিযুক্ত করেন শাহরুখ। তা সত্ত্বেও জামিন পাননি আরিয়ান। তখন আইনজীবীর ভূমিকায় একেবারেই সন্তুষ্ট হননি শাহরুখ। এরপর অমিত দেশাইকে আরিয়ানের আইনজীবী হিসেবে নিয়োগ করা হয়। সলমন খানের ‘হিট অ্যান্ড রান’ মামলার আইনজীবী ছিলেন এই অমিত দেশাই। তাঁর তত্ত্বাবধানেই ২০১৫ সালের মে মাসে জামিনে মুক্তি পান সলমন। গত ১১ অক্টোবর অমিত দেশাই   আরিয়ানের জন্য আদালতে গিয়ে জামিনের আর্জি দাখিল করেন। তিনি বলেন, ‘জামিনের আবেদন তদন্তের উপর নির্ভর করে না। এনসিবি তদন্ত করতেই পারে। তবে প্রশাসনিক কারণে কোনও মুক্তি আটকাতে পারে না।’ কিন্তু তাঁর এই যুক্তিতেও জামিন পেলেন না আরিয়ান খান।

Related Articles

Back to top button
Close