fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কার্ড সিস্টেম চালু ও নজরদারির ফলে ভিড় কমতে শুরু করেছে দিনহাটার বাজারে

সোমা কর, দিনহাটা: করোনা থেকে রক্ষা করতে বাজারে ভিড় কমাতে নানাভাবে চেষ্টা শুরু করেছে পুরসভা ও পুলিশ প্রশাসন। পুরসভার পক্ষ থেকে যেমন প্রতিটি পরিবার পিছু কার্ড সিস্টেম চালু করা হয়েছে তেমনি পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকেও বিভিন্ন বাজারে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। পুর কর্তৃপক্ষের কড়া পদক্ষেপের ফলে সেই কার্ডের সুফল মিলতে শুরু করেছে ধীরে ধীরে। শুক্রবার দিনহাটার চওড়া হাট এলাকায় রাস্তার ধারে সবজি বাজারে যেমন ছিল অনেকটাই কম তেমনি শোনীদেবী স্কুলের মাঠে মাছ ও মাংসের বাজারেও ভিড় ছিল অন্যান্য দিনের তুলনায় অনেক কম। লকডাউন এর ফলে পরবর্তীতে মাত্র কয়েক ঘণ্টার জন্য বাজার চালু হলেও প্রথমদিকে ভিড় চোখে পড়লেও কার্ডের ফলে বাজারে ভিড় অনেকটাই কমে এসেছে। শোনীদেবী স্কুলের গেটের সামনে পুরসভার পক্ষ থেকে কর্মীরা কার্ড ছাড়া কাউকেই ভিতরে ঢুকতে না দেওয়ার উপর নজর বাড়ানোয় ভিড় কমেছে বলে মনে করছেন অনেকেই। এদিন সংশ্লিষ্ট মাছ বাজারে ঢোকার আগেই স্কুলের গেটের সামনে দেখা গেল পুরসভার কর্মীদের নজরদারি।

পুরসভা সূত্রে জানা গেছে বাজারে ভিড় কমাতে কার্ড সিস্টেম চালু করে মানুষের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা যখন বারবার বলা হচ্ছে তার পরেও বাজারগুলিতে ভিড় হচ্ছিল। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকেও নানাভাবে সামলানোর জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে। তারপরেও নানাভাবে বাজারে ভিড় রোধে পরিবারপিছু কার্ড সিস্টেম চালু করা হয়। এর ফলে একেকটি পরিবার সপ্তাহে দু দিনের বেশি বাজারজাতে না করেন তার জন্য আবেদন জানানো হয়। পুরসভার ও আশপাশ এলাকার বাসিন্দারা কিছুটা হলেও সারা দেওয়ায় পুরসভার এই উদ্যোগে বাজারে ভিড় কমায় বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকেও প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানানো হয়।

এদিকে পুরসভার পাশাপাশি দিনহাটা মহকুমা পুলিশ আধিকারিক মানবেন্দ্র দাস, আইসি সঞ্জয় দত্ত , এসআই বিমান সরকার, রাজু রায় , দীপক রায় প্রমূখ পুলিশ আধিকারিকরা বাজারে যাতে কোনোভাবেই ভিড়ে না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে সকাল থেকে বাজার বন্ধ হওয়ার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত নানা ভাবে মানুষকে সচেতন করে চলছেন।দিনহাটা পুলিশের ভূমিকা ও যথেষ্ট ইতিবাচক থাকায় যৌথ প্রয়াসে বাজারে ভিড় রোধ করা অনেকটাই সম্ভব হচ্ছে বলেও মনে করছেন অনেকে। কার্ড সিস্টেম করে আবেদনের, পাশাপাশি বিভিন্ন সংস্থার পক্ষ থেকে বাড়িতে বাড়িতে বিভিন্ন রকম সবজির হোম ডেলিভারি দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: খাদ্য সঙ্কট রুখতে জেলায় পুরনো রেশন কার্ডেই দেওয়া হবে কুপন!

পুরসভার পক্ষ থেকেও চালু করা হয়েছে পৌরবাজার। মানুষকে ঘরে থাকার আহ্বান জানানোর পাশাপাশি পুর কর্মীরা বিভিন্ন এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে চাহিদামতো সেই সবজি তুলে দিচ্ছেন দিনহাটার বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃত্ব বলেন পুরসভার এই উদ্যোগ এবং পুলিশ প্রশাসনের প্রচেষ্টার ফলে কিছুটা হলেও বাজারে ভিড় রোধ করা সম্ভব হয়েছে। পুরপ্রধান উদয়ন গুহ বলেন এই রোগ প্রতিরোধের অন্যতম উপায় হল মাস্ক ব্যবহার ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। তাই বাজারে ভিড় এড়াতে তারা কার্ড সিস্টেম চালু করে মানুষের কাছে আবেদন জানান অযথা ভিড় না করার জন্য। মানুষ সেই আবেদনে সাড়া দেওয়ায় এবং বাজারগুলিতে কিছুটা হলেও ভিড় কমায় সকলের প্রচেষ্টায় দিনহাটা কে এখনো সুস্থ স্বাভাবিক রাখা সম্ভব হয়েছে।  দিনহাটা মহকুমা পুলিশ আধিকারিক মানবেন্দ্র দাস বলেন বাজারে ভিড় কমাতে নানাভাবে প্রচেষ্টার জারি রাখা হয়েছে। মানুষ আরো বেশি সচেতন হলে বাজারে ভিড় রোধ করা সম্ভব হবে।

Related Articles

Back to top button
Close