fbpx
অসমগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

অসম-মিজোরাম সীমান্তে তুমুল সংঘর্ষ, বৈঠকের ডাক কেন্দ্রের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: সীমান্ত সংঘাতে অগ্নিগর্ভ অসম ও মিজোরাম। গত শনিবার দুই রাজ্যের সীমান্তে বসবাসকারী মানুষের মধ্যে শুরু হয় সংঘর্ষ। আহত হন বেশ কয়েকজন। এহেন পরিস্থিতিতে শান্তি ফেরাতে কেন্দ্রের দ্বারস্থ হয়েছে দুই রাজ্য। শনিবার সন্ধ্যায় অসমের কাছার জেলার লায়লাপুর এলাকায় এই সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি এতটাই ভয়াবহ আকার ধারণ করে যে বেশ কিছু বাড়িতেও আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। বিপুল সংখ্যক নিরাপত্তা বাহিনী পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হয়।

এই মুহূর্তে সীমান্তে উত্তপ্ত এলাকায় প্রচুর পরিমাণে নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করেছে দু’রাজ্যই। মিজোরামের কলাসিব জেলার ভাইরাংটে গ্রাম ও অসমের কাছাড় জেলার লাইলাপুর এলাকায় এই নিরাপত্তারক্ষীদের মোতায়েন করা হয়েছে। তার ফলে মিজোরামের দিকে যাওয়ার পথে কয়েকশ ট্রাক এই মুহূর্তে সীমান্তে আটকে রয়েছে। স্থানীয় সূত্রে খবর, লাইলাপুরের গ্রামবাসীর পণ্যবাহী ট্রাক মিজোরামে ঢুকতে দিচ্ছেন না। ফলে পরিস্থিতি আরও জটিল হলে খাবার, ওষুধ, রান্নার গ্যাস ও পেট্রোল ডিজেলের অভাব দেখা দেবে মিজোরামে।

জানা গিয়েছে, গণ্ডগোলের সূত্রপাত হয় গত শনিবার। অসমের বাসিন্দারা অভিযোগ তোলেন তাঁদের দিকে মিজোরাম সরকার একটি কোভিড ১৯ নমুনা পরীক্ষা কেন্দ্র বানিয়েছে। মিজোরামের দিকে যে ট্রাক চালক ও অন্যান্যরা যাচ্ছে তাদের নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে সেখানে। অসম সরকারকে না জানিয়েই এই পরীক্ষা কেন্দ্র তৈরি করা হয়েছে বলে অভিযোগ তোলে তারা। তারপরই লাইলাপুরের বেশকিছু বাসিন্দা লাঠি, দা হাতে নিয়ে সেখানে হামলা চালায়। এর পরেই মিজোরামের দিক থেকে কিছু যুবক এসে লাইলাপুরে ১৫ টি দোকান ও বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছায় যে সংঘাত পাশের করিমগঞ্জ জেলাতেও তা ছড়িয়ে পড়ে। নিরাপত্তারক্ষী বাড়াতে বাধ্য হয় দুই রাজ্য।

আরও পড়ুন: মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে উত্তরপ্রদেশে ফের তরুণীকে গণধর্ষণ

রবিবার পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাঙ্গার সঙ্গে ফোনে কথাও বলেছেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনওয়াল। এই বিষয়ে জোরামথাঙ্গা আশ্বাস দিয়েছেন, আলোচনার মাধ্যমে শান্তি ফেরাতে চান তাঁরাও। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর দফতর এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককেও সর্বশেষ পরিস্থিতি জানিয়েছে অসম সরকার। পরিস্থিতির গুরুত্ব বিচার করে সোমবারই তড়িঘড়ি দুই রাজ্যের মুখ্যসচিবদের নিয়ে বৈঠক ডেকেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় কুমার ভল্লা। মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনে আলোচনায় অসমের মুখ্যমন্ত্রীও সীমান্ত এলাকায় শান্তি ফেরাতে যৌথ উদ্যোগের উপরে জোর দিয়েছেন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে যে এলাকাগুলিতে সংঘর্ষ ছড়িয়েছে, সেখানে বিশাল সংখ্যক নিরাপত্তাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে দুই রাজ্যের তরফে। অন্যদিকে একটি মন্দির নির্মাণকে কেন্দ্র করে মিজোরাম এবং ত্রিপুরা সীমান্তেও গত কয়েকদিন ধরে উত্তেজনা বাড়ছে।

 

Related Articles

Back to top button
Close