পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সত্তরোর্ধ্ব প্রৌঢ়াকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে গ্রেফতার যুবক

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: প্রৌঢ়াকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে গ্রেপ্তার হল এক যুবক। অভিযুক্ত যুবকের নাম অনিল মাড্ডি। পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রাম থানার পুলিশ শুক্রবার রাতে তাঁকে গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতের বাড়ি ভাতার থানার রামচন্দ্রপুরের ছাতিমডাঙ্গায়। এই যুবক দিনমজুরের কাজ করলেও মাত্র ২০ বছর বয়সে সে তিনবার বিয়ের পিঁড়িতে বসে ফেলেছে। সুনির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজুকরে পুলিশ শনিবার ধৃতকে পেশ করে বর্ধমান আদালতে। বিচারক ধৃতের জামিন নামাঞ্জুর করে ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জেল হেপাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

আরও পড়ুন: ৬৫-তম ফিল্মফেয়ার অনুষ্ঠান ঘিরে কড়া নিরাপত্তা গুয়াহাটিতে

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, আউশগ্রামের শিবদা এলাকার সত্তরোর্ধ্ব প্রৌঢ়ার বাড়ি। কেবল লাইনের বিল জমা দিতে শুক্রবার বিকালে তিনি বাড়ির অদূরের কেবল লাইন অফিসে যাচ্ছিলেন। অভিযোগ ওই সময়ে নির্জন রাস্তায় প্রৌঢ়াকে একা পেয়ে তাঁর পথ আটকায় যুবক অনিল মাড্ডি। এরপর সে জোর করে প্রৌঢ়াকে বাঁশ বাগানের ভিতর নিয়ে গিয়ে ধর্ষনের চেষ্টা করে। প্রৌঢ়া চিৎকার শুরু করলে যুবক তাঁর মুখে রুমাল গুঁজেদেয়। স্থানীয়রা প্রৌঢ়ার গোঙানির শব্দ শুনে বাঁশ বাগানের ভিতরে ছুটে গেলে যুবক অনিল মাড্ডি পালিয়ে যাবার চেষ্টা করে। এলাকার বাসিন্দারাই পিছু ধাওয়া করে তাঁকে ধরে ফেলে। খবর পেয়ে আউশগ্রাম থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে স্থানীয়রা অভিযুক্ত যুবক অনিলকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। প্রৌঢ়াকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় গুসকরা স্বাস্থকেন্দ্রে। ঘটনার সবিস্তার উল্লেখ করে রাতে প্রৌঢ়া আউশগ্রাম থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ অনিল মাড্ডিকে গ্রেফতার করে। অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছে প্রৌঢ়ার পরিজন ও প্রতিবেশিরা।

Related Articles

Back to top button
Close