fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিজেপি করার অপরাধে যুবককে মারধর ও খুনের চেষ্টা, এলাকায় উওেজনা

মিলন পণ্ডা, কাঁথি (পূর্ব মেদিনীপুর): অধিকারী গড়ে আক্রান্ত হলেন বিজেপি কর্মী। শুধুমাত্র এলাকায় বিজেপিতে নেতৃত্ব দেওয়ার অভিযোগে প্রাণঘাতী হামলা চালানোর অভিযোগ উঠলো শাসক দলের বিরুদ্ধে। আক্রান্ত বিজেপি কর্মী হাসপাতালে সঙ্কটজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি এক ব্লকের নয়াপুট গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। এই ঘটনার পর এলাকায় রাজনৈতিক উত্তেজনা নতুন করে ছড়িয়েছে। যদিও এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছে শাসক দলের নেতৃত্ব। সম্পূর্ণ পারিবারিক ঘটনা হিসেবে দাবি করা হয়েছে।

বিজেপির অভিযোগ, পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি এক ব্লকের নয়াপুট গ্রাম পঞ্চায়েতের সামনে বিজেপি কর্মী অভিজিৎ সামন্তের একটি চায়ের দোকান রয়েছে। অভিজিত বাবু এলাকায় বিজেপি দলের হয়ে নেতৃত্ব দেন। বিজেপিতে নেতৃত্ব দেওয়ার অপরাধে অভিজিত বাবুর উপর ক্ষোপ বাড়ছিল শাসক দলের অন্তরে। শনিবার রাত্রি নটা নাগাদ দোকান বন্ধ করার সময় তৃণমূল আশ্রিত বেশ কয়েকজন দুষ্কৃতি যুবক বিজেপি কর্মী অভিজিত বাবুর উপর অতর্কিত হামলা চালায় বলে অভিযোগ। চিৎকার শুনে অন্যরা ছুটে এসে ওই বিজেপি কর্মীরকে উদ্ধার করে কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করেন। এখন সঙ্কটজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন বলে জানা গিয়েছে।

আক্রান্ত বিজেপি কর্মী অভিজিৎ সামন্ত বলেন, এলাকায় সক্রিয় বিজেপি কর্মী হওয়ার পরিকল্পিত ভাবে তৃণমূল হামলার ছক কষেছিল। শনিবার রাতে প্রানে মেরে ফেলতে হামলা চালিয়েছে তৃণমূল। কাঁথি সাংগঠনিক জেলার বিজেপির সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী বলেন, লোকসভা নির্বাচনের পর তৃণমূল বুঝে গিয়েছে তার পায়ের তলায় মাটি সরে গিয়েছে। তাই বেছে বেছে বিজেপি কর্মীদের ওপর হামলা চালাচ্ছে। মানুষ যোগ্য জবাব দেবে।

নয়াপুট গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ও অঞ্চল তৃণমূল সভাপতি অসিত গিরি বলেন, এই অভিযোগ পুরোপুরি ভিত্তিহীন। গ্রামের শক্তিপদ সামন্ত ও অভিজিৎ সামন্ত সঙ্গে পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঝামেলা হয়। গাড়ি করে চিকিৎসার জন্য কাঁথি হাসপাতালে পাঠাই। শক্তিপদ সামন্ত হাসপাতালে সঙ্কটজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। পুলিশ প্রশাসনের তদন্ত করে প্রকৃত দোষীকে শাস্তি হোক। এই ঘটনার সঙ্গে যে দলের কর্মী যুক্ত থাকুন না কেন, অপরাধীর শাস্তি হওয়া উচিত। জুনপুট উপকুল থানার ওসি রাজু কুন্ডু বলেন বলেন, এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি। অভিযোগ পেলে পুরো ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close