fbpx
অসমহেডলাইন

স্বাধীনতার দিনে লক্ষীপুরে জ্বলল অটো, আহত ২  

লক্ষীপুর: রহস্যজনকভাবে অটো রিক্সা জ্বালিয়ে দেওয়া হল লক্ষীপুরে l তবে,কারা এই কাণ্ডে লিপ্ত এখনও পর্যন্ত শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ l ঘটনার পর ভস্মীভূত অটো রিক্সাটি লক্ষীপুর থানায় আনা হয়েছে l অটো চালক জানান, শনিবার সকাল ন’টা নাগাদ তিনি তিন জনকে নিয়ে রিজার্ভ এসেছিলেন l ঘুরে যাওয়ার সময় ফুলেরতল সংযুক্ত বরাক সেতুর সামনে যাত্রীরা কিছু খাওয়ার কথা বললে তিনি অটোটি দাঁড় করেন l এরপর নিজেও চলে যান সামনে থাকা একটি চায়ের দোকানে l এরমধ্যে কয়েকটি বাইক নিয়ে এসে যুবকরা অটো ঘেরাও করেন l দাবি করেন অটোর চাবি দেওয়ার l তাই ভয়ে অটোর চাবি দিয়ে তিনি পুনরায় চলে যান দোকানে l এরপর দোকান থেকে বের হয়ে আর অটো সহ কাউকে দেখতে পান নি l

অনেকক্ষণ ঘুরাঘুরি করে অটোর সন্ধান না পাওয়ার পর খবর দেন আরেক অটো চালককেl সহপাঠী অটো নিয়ে আসলে অনেক খোঁজাখুঁজি করেন নিজের অটোর l কিন্তু কোনো সন্ধান পাননি l পরে খবর পান অটোটি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে l কিন্তু কেন অটোটি জ্বালিয়ে দেওয়া হল ? চালক এ বিষয়ে কিছু বলতে না পারলেও  যুবক-যুবতীর কারণেই কে বা কারা অটোটি জ্বালিয়ে দিয়েছে বলে জানা গেছে l

জানা গেছে, ক্লাস টেনের এক যুবক সহ দুই যুবতী এসেছিল অটোতে l এরপর এক যুবতী অটো থেকে নিজের ঘরে চলে যায় l এই সময় অটোতে ছিল ভিনধর্মী এক যুবক ও যুবতী l বিষয়টি দেখে কিছু লোকের সন্দেহ হলে তারা তাদের নাম ঠিকানা জানতে চান l এরপরই আসল রহস্য জেনে অটো সহ যুবক-যুবতীকে নিয়ে যাওয়া হয় কালাপুল এলাকায় l এখানে তাদের মারধর করে কে বা কারা অটোটি জ্বালিয়ে দেয় l

এদিকে, ঘটনার খবর পেয়ে দলবল নিয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান লক্ষীপুরের এসডিপিও শচীন্দ্র শর্মা,লক্ষীপুর থানার ওসি বিকে চেত্রি l তারা গিয়ে আহত অবস্থায় যুবক-যুবতীকে উদ্ধার করেন l এরপর দমকল বাহিনী গিয়ে অটোর আগুন নেভায় l কিন্তু কোনও লাভ হয় নি l এরআগেই অটোটি জ্বলে ভস্মীভূত হয়ে যায় l এনিয়ে এসডিপিও শচীন্দ্র শর্মা জানান,কারা এই কাণ্ডের সঙ্গে জড়িত তা শনাক্ত করা না গেলেও বিষয়টির তদন্ত হবে l এছাড়া,বিন্নাকান্দি জিপি সভানেত্রী নমিনি বিনয় নন্দী জানান,তিনি আসার আগেই অটোটি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছিল l বিষয়টি দেখে তিনি লক্ষীপুর থানায় খবর দিয়েছিলেন l জানা গেছে, শনিবার পুলিশ যুবক-যুবতীকে লক্ষীপুর থানায় নিয়ে আসলেও l যুবতীর বাবা জিরিঘাট থানায় বলপূর্বক উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার একটি মামলা দায়ের করেন l পরে যুবতীকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় শিলচর উজালা কেয়ারে l আর যুবককে রাখা হয় লক্ষীপুর থানায় l

Related Articles

Back to top button
Close