fbpx
অন্যান্যপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কাজ নেই… লকডাউনে দুঃশ্চিন্তায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু অটো চালকের!

জেলা প্রতিনিধি, মালদা: লকডাউনের জেরে কর্মহীন এবং দুঃশ্চিন্তায় অসুস্থ হয়ে মৃত্যু হলো এক অটো চালকের। শুক্রবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার শিবমন্দির পাড়া এলাকায়। এই অবস্থায় অথৈ জলে দীন দরিদ্র পরিবারটি। সংসারে একমাত্র উপার্জনশীল গৃহকর্তার মৃত্যুতে পাঁচ নাবালক সন্তানদের নিয়ে দিশেহারা গৃহকর্তী সান্তনা পরিহার। এই অবস্থায় পঞ্চায়েত ও প্রশাসনের কাছে সাহায্যের অনুরোধ জানিয়েছেন মৃত ওই অটোচালকের পরিবার।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত অটোচালকের নাম রামকুমার পরিহার (৪৮)।  সম্প্রতি করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউনের মধ্যে ঘরে বসেই দিন কাটাচ্ছিলেন অটোচালক রামকুমার পরিহার। রোজগার কিছুই ছিল না। তার সঙ্গে হার্টের অসুখে ভুগছিলেন। টাকার অভাবে চিকিৎসা করাতে পারেন নি তিনি। কয়েকদিন আগে হৃদরোগের অসুস্থতার কারণে বাড়িতেই শয্যাশায়ী ছিলেন রামকুমারবাবু অবশেষে তাঁর হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় বলে পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে।

 

মৃতের স্ত্রী সান্ত্বনাদেবী বলেন, বাড়িতে নেই পরিস্রুত পানীয় জলের কোনও ব্যবস্থা। এক চিলতে চাটায় টালি দিয়ে রয়েছে তাদের ঘর।  বাড়ির পাশের পুকুরের জল তাদের ব্যবহার করতে হয়।

সান্তনাদেবী বলেন, লকডাউনের জেরে কর্মহীন হয়ে পড়েছিলেন স্বামী। দুঃশ্চিন্তার থেকেই  হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে স্বামীর মৃত্যু হয়। স্বামীর অধিকার তাদের সংসার চলতো। লকডাউনের জেরে তাও বন্ধ হয়েছিল। টাকার অভাবে চিকিৎসা করাতে পারি নি।

রামকুমার বাবুর দুই ছেলে তিন মেয়ে। চার বছরের রাহুল পরিহার বাবার মুখাগ্নি করেছে।এই পাঁচ ছেলে মেয়ের পড়াশোনা ও তাদের খাবার যোগান কিভাবে হবে কিছুই বুঝতে পারছেন না সান্তনাদেবী।

মৃত রামকুমার পরিহারের ভাই টিংকু পরিহার বলেন, দাদা অটো চালিয়ে সংসার চালাত। লকডাউনে বেকার হয়ে ঘরে বসে ছিল। রোজগার কিছুই ছিল না। হার্টের অসুখে ভুগছিল। এইভাবে মারা যাওয়াতে তাদের পরিবারটা পথে বসে গিয়েছে। এই অবস্থায় পঞ্চায়েত এবং প্রশাসনের উচিত তাদের পরিবারের পাশে দাঁড়ানো।

স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য রেনু শর্মা জানিয়েছেন, গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে যতটা সম্ভব ওই পরিবারটিকে সাহায্য করা হবে।

হরিশ্চন্দ্রপুর ১ ব্লকের বিডিও অনির্বাণ বসু জানিয়েছেন, স্থানীয় পঞ্চায়েতকে দিয়ে ওই পরিবারটি কিছু সাহায্য পায় তার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। ওই পরিবারের জন্য শৌচালয় , পানীয় জল এর ব্যবস্থা করা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close