fbpx
পশ্চিমবঙ্গবিনোদনহেডলাইন

সচেতনতার বার্তা, বাড়িতে বসেই এন্টারটেইনমেন্ট সার্কেলের শর্টফিল্ম ‘লকডাউন’

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর: চলছে লকডাউন। গৃহবন্দি মানুষ। সময় কাটছে টিভি দেখে, আবার কারও নানান স্বাদের রান্না করে। আবার কেউ মোবাইলে সোশ্যাল সাইটে টিকটকের মতো ভিডিও গানে মশগুল। তবুও এক ঘেঁয়েমি হয়ে পড়ছে অনেকেই। বিধি ভেঙে বাইরে বেরিয়ে পড়ছে অনেকেই। নিয়ম মেনে বাড়িতে থাকার পাশাপাশি নিজের সুপ্ত প্রতিভাকে তুলে ধরতে শর্টফিল্ম তৈরি করল পানাগড়ের এন্টারটেইনমেন্ট সার্কেল।

ছবির নাম ‘লকডাউন’। ছবির মুল কারিগর অর্থাৎ পরিকল্পনা, কাহিনি অনিরুদ্ধ আচার্য্য। অভিনয়ে রয়েছে অনিরুদ্ধ ছাড়াও রাহুল দাস, দীপশিখা রায়, অর্পিতা দান, প্রশান্ত নাগ, সৌরভ বর্মন, সিদ্ধার্থ রায়চৌধুরী, পদ্মাবতী পাল, অদিতি, সুনেত্রা, অয়ন প্রমুখ জনা বিশেক যুবক, যুবতী, গৃহবধু রয়েছে দলে। এদের কেউ বেসরকারি সংস্থার স্বাস্থ্যকর্মী, কেউ ছাত্রী, কেউ ব্যবসায়ী, কেউ বেসরকারি সংস্থার কর্মী, আবার কেউ বিমা কর্মী।

গত দেড় মাস ধরে নোভেল করোনার সংক্রামক রুখতে দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। বন্ধ স্কুল, কলেজ, কাজকর্ম। এককথায় গৃহবন্দি মানুষ। আর তার জেরে একঘেঁয়েমি জীবন হয়ে উঠেছে। সময় কাটাছে কেউ টিভি দেখে, আবার কারও নানান স্বাদের রান্না করে, তৈরি করছে নানা শিল্পকলা। আবার কেউ মোবাইলে সোশ্যাল সাইটে টিকটকের মতো ভিডিও গানেও মশগুল। তবুও এক ঘেঁয়ামি হয়ে পড়ছে। বিধি ভেঙে বাইরে বেরিয়ে পড়ছে অনেকেই।

সরকারি নির্দেশিকা পালন করতে বাড়িতে থাকার আবেদন জানাতে ‘শর্টফিল্ম’ তৈরি করল অনিরুদ্ধর মতো যুবক যুবতীরা। কি আছে ছবিতে? প্রায় ৮-৯ মিনিটের ছবি। লকডাউনের ঘোষণার মাঝে স্কুল ছাত্রী অদিতির আকস্মিক উধাও হয়ে যাওয়া আর খুঁজে বেড়ানো নিয়েই গল্প। কিন্তু অদিতি যে দায়িত্বশীল নাগরিক এবং সরকারি নির্দেশিকাকে পালন করছে সেটা যেমন বুঝিয়েছে। তেমনই নিজের সুপ্ত বাসনা গান, কবিতা লেখা নতুন করে শুরু করেছে লকডাউনে। আগামীদিনে হয়তো এটাই ইতিহাস হয়ে স্মরণে থাকবে। ছবির মুল কারিগর অনিরুদ্ধ আচার্য্য জানান,” বাড়িতে বসেই মানুষকে বিনোদন দেওয়া।

একইসঙ্গে সরকারি নির্দেশিকাকে পালন করার বার্তা দেওয়া মুল উদ্দেশ্য। প্রত্যেকেই নিজের বাড়ীতে থেকে ভিডিও শুট করেছে। ” তিনি আরও বলেন,” কারও বাড়ি দুর্গাপুর, কারও বাঁকুড়ার বিষ্ণুপর, কারও বাড়ি পানাগড়, আবার কেউ থাকে বুদবুদে। সকলেই আলদা পেশায় যুক্ত। প্রত্যেককে আলদা করে সংলাপ পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল। নিজের মতো করে শুট করেছে। কাউকে বাড়ির বাইরে আসতেও হয়নি। এন্টারটেইনমেন্ট সার্কেলের গ্রুপে সকলের শুট করা ভিডিও নিয়ে তৈরি করা হয়েছে ‘লকডাউন’ ছবিটি।”

অভিনয়ে থাকা দীপশিখা রায় জানান,” লকডাউনে নিজেদের সুপ্ত প্রতিভাকে বাড়িতে বসেই জাগিয়ে তোলার একটা বার্তা। তাতে অবশ্যই সকলে যেন সরকার নির্দেশিকা পালন করে।” তবে তাদের একটা ছবিই নয়। লকডাউনে সমাজকে বার্তা দিতে একাধিক গানের সুরে সুর মিলিয়ে তেরি মিট্টি, এই বাংলা হাসবে আবার, মুশকুরায়েগা ইন্ডিয়ার মতো ছবি তৈরি করেছে এন্টারটেইনমেন্ট সার্কেল।

Related Articles

Back to top button
Close