fbpx
অফবিটদেশহেডলাইন

গরম গরম রুটি-রাজমা, বাবা কা ধাবার পার্টনার হল জোম্যাটো, পাশে রবিনা থেকে রবিচন্দ্রণ

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: জোম্যাটো ফুডলিস্টেও স্থান পেয়ে গেল দিল্লির বাবা কা ধাবা,এখন দোকানে কাস্টমার না এলেও সমস্যা নেই। অর্ডার দিলেই ঘরে বসে মিলবে বাবা কা ধাবার গরম গরম খাবার।

দিল্লিতে একটি ধাবা আছে তাঁর। রাস্তার ধারে ছোট্ট দোকান। এখানে পাওয়া যায় ভাত, তরকা ডাল, চিকেন, হাতে তৈরি রুটি। ছোট্ট ঘুমটি দোকান। খাবার বানান ওই দম্পতী নিজেরাই। ঠিক যেমন কলকাতার ঝুপরির খাবারের দোকানগুলো হয় অনেকটা তেমনই। কিন্তু দীর্ঘ লকডাউনে একেবারে বিক্রি বন্ধ হয়ে যায়। অনেক দিন দোকান বন্ধ রেখে না খেতে পেয়ে দিন কাটাচ্ছিলেন তাঁরা। আনলক পর্যায়ে তাঁরা দোকান তো খোলেন, কিন্তু তাতে দেখা নেই একজনেরও। এমন সময় এক ব্যক্তি তাঁদের সমস্যা সোশাল মিডিয়ায় তুলে ধরতেই ভাইরাল হয়ে যান ওই বৃদ্ধ দম্পতি। এর পর পুরো চিত্রটাই বদলে যায়।

বলিউড অভিনেত্রী রবিনা ট্যান্ডন সহ অনেকেই ওই বৃদ্ধকে সাহায্যের কথা বলেন। বলেন, যাও ওঁর দোকান থেকেই সবাই খাবার কেনো”। পাশে দাঁড়িয়েছিলেন ক্রিকেটার রবিচন্দ্রণ আশ্বিনও।এরপর সারা দিল্লি থেকে মানুষ পৌঁছে গিয়েছেন ৮০ বছর বয়সী কান্তা প্রসাদের দোকানে। নানা রকম খাবার কেনার জন্য লম্বা লাইন পড়ে যায়। কান্তা প্রসাদ আর তাঁর বৃদ্ধা স্ত্রী সারাদিন খাবার তৈরি করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়েন।

করোনায় কত মানুষ যে কাজ হারিয়ে বিপদে পড়েছেন, তার হিসেব নেই। বহু দোকান-পাট বন্ধ হয়ে গিয়েছে। দীর্ঘদিন লকডাউন চলায়, রাস্তা ঘাট, অফিস, স্কুল সবই বন্ধ। ফলে দেখা নেই মানুষের। আর এই সময় জীবন মরণ সমস্যায় পড়েন দিল্লির ৮০ বছর বয়সী বৃদ্ধ ও তাঁর স্ত্রী।

Related Articles

Back to top button
Close