fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খকলকাতাহেডলাইন

নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে আপ্লুত বাবুল

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে মুড়ি না খাওয়ার পরামর্শ দিলেন মমতা!

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: যে ‘ঝালমুড়ির টানে’ বাবুলের দল পরিবর্তন, সেই ঝালমুড়ি থেকেই বাবুলকে দূরে থাকার পরামর্শ দিলেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার নবান্নে মমতার সঙ্গে সাক্ষাতের পর সাংবাদিকদের উদ্দেশে একথা বলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী তথা বর্তমান তৃণমূল নেতা বাবুল সুপ্রিয়। এ নিয়ে প্রশ্ন করতেই আসানসোলের সাংসদ বলেন, ‘এখন দেখা গিয়েছে মুড়ি খেলে মোটা হয়ে যাচ্ছে। ইউরিয়া মেশানো হচ্ছে মুড়িতে। তাই দিদি সেই মুড়ি খেতে বারণ করেছেন। উনিও খাচ্ছেন না।’
উল্লেখ্য, দুদিন আগেই দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে ক্যামক স্ট্রিটের অফিসে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন বাবুল। তার দুদিনের মাথায় এদিন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চলে আসেন নবান্নে। তবে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পর থেকেই তাঁর প্রাক্তন সতীর্থরা রাজনৈতিক কেরিয়ার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। কিন্তু তৃণমূল সূত্রে খবর, লোকসভার সাংসদ পদ ছেড়ে দিতে পারেন তিনি। বদলে অর্পিতা ঘোষের ছেড়ে যাওয়া সাংসদ আসনে রাজ্যসভায় যেতে পারেন বাবুল। যদিও এ বিষয়ে বাবুলের কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। এদিন বাবুল আরও জানিয়েছেন, ‘দিদি বলেছেন মন খুলে কাজ করতে। সঙ্গে মন খুলে গান করতেও বলেছেন।’
এদিন খোশ মেজাজে নবান্নের আঙিনায় দেখা গেল বাবুল সুপ্রিয়কে। সম্প্রতি বিজেপির সমস্ত পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন বাবুল। তাই এখন সব চাপ কাটিয়ে মনের আনন্দে দিদি ও অভিষেকের হয়ে কাজ করতে চান বাবুল, তাও হাবভাবে বুঝিয়ে দিলেন। এদিন দুপুরে নবান্নে আসেন বাবুল। মুখ্যমন্ত্রীর ঘরে বসে দু’জনের মধ্যে আধঘণ্টা কথাবার্তা হয়। বিভিন্ন বিষয়ে তাঁদের কথা হয়েছে বলে জানান সাংসদ। নবান্ন থেকে বেরিয়ে এ প্রসঙ্গে বাবুল বলেন, ‘আমি আজ খুশি। দিদির ভালবাসা, উষ্ণ অভ্যর্থনায় আমি আপ্লুত। মন খুলে কাজ করতে পারব’। তবে দলে তাঁর ভূমিকা কী হবে, তা ভবিষ্যতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঠিক করে দেবেন। তবে তৃণমূল সুপ্রিমো ও দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক যা দায়িত্বে দেবেন, সেটা অক্ষরে অক্ষরে পালন করবেন বলে জানান বাবুল। তাঁর কথায়, ‘দিদি, অভিষেক যা দায়িত্ব দেবেন তা পালন করব। মন খুলে গানও গাইতে পারব। দিদি যে গান গাইতে বলবেন, সেই গান গাইব। এর আগেও একাধিকবার দিদির সঙ্গে আমার দেখা হয়েছে। বিভিন্ন বিষয়ে কথা হয়েছে। এদিনও তাই হল। অন্য জায়গা থেকে এখানে এসেছি। কিন্তু দিদি, অভিষেক আমাকে আপন করে নিয়েছেন।’ নতুন উদ্যমে ফের কাজ শুরু করতে চলেছেন বাবুল সুপ্রিয়। গত কয়েকদিন আগেও নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে নিজের কাজের খতিয়ান তুলে ধরে প্রতিবাদ স্বরুপ জানান দিয়েছিলেন এ পর্যন্ত মন্ত্রী হিসেবে কি কি কাজ করেছেন।প্রসঙ্গত রাজনৈতিক কেরিয়ারের প্রথম থেকেই বাবুল বিজেপিতে। কিন্তু হঠাৎ করে অন্য দল থেকে লোক নিয়ে এসে তাঁদের মাথায় বসানোকে কোনও ভাবেই মেনে নিতে পারেননি বাবুল সুপ্রিয়।

উল্লেখ্য, এদিন নিজেই গাড়ি চালিয়ে ডেরেক ও ‘ব্রায়েনের সঙ্গে নবান্নে আসেন তিনি। তার কিছুক্ষণের মধ্যেই নবান্নে আসেন অভিষেক। বুধবার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিতে চান বাবুল সুপ্রিয়

Related Articles

Back to top button
Close