fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাংলাদেশে হিন্দু নির্যাতনের প্রতিবাদে দুর্গাপুরে মহকুমা শাসকের কাছে স্মারকলিপি জমা দিল বজরং দল

নিজস্ব সংবাদদাতা, দুর্গাপুর: বাংলাদেশের ধর্ম অবমাননার গুজব ছড়িয়ে বাংলাদেশ, বিশেষ করে দিনাজপুর কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন জায়গায় সংখ্যালঘুদের বাড়িতে ঘর ভাঙচুর অগ্নিসংযোগের মতো ঘটনা ঘটিয়ে উদ্বেগজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়েছে।
এই প্রথম নয় এর আগেও সংখ্যালঘুদের ওপর(বিশেষ করে হিন্দু সম্প্রদায়) হামলা-নির্যাতনের অনেক ঘটনা ঘটেছে কিন্তু কোনো বিচার না হওয়ায় সংখ্যালঘুদের মধ্যে নিরাপত্তাহীনতা কাজ করছে। তাই বাংলাদেশের হিন্দু নির্যাতনের প্রতিবাদে সারা দেশ জুড়ে আন্দোলনে নেমেছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ এর যুব সংগঠন বজরং দল।

সম্প্রতি, বাংলাদেশ এর বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী চলতি বছরের মার্চ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সাত মাসে ১৭ জন ব্যক্তি সাম্প্রদায়িক হামলার শিকার হয়ে মারা গেছেন। ১০ জনকে হত্যার চেষ্টা করা হয়, হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে ১১ জনকে, ধর্ষণ গণধর্ষণ নির্যাতনের শিকার হন ৩০ জন, ধর্ষণের চেষ্টার শিকার হন ৩জন, শ্লীলতাহানীর কারণে আত্মহত্যা করেন ৩জন, অপহরণের ঘটনা ঘটে ২৩ টি, নিখোঁজ ৩ জন, প্রতিমা ভাঙচুর ২৭ টি, মন্দিরে হামলা ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগের ঘটনা ২৩ টি, শ্মশান ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সম্পত্তি দখলের ঘটনা ৫ টি, শ্মশান দখলের চেষ্টা করা হয় ৭৩ বার, বসতভিটা জমিজমা শ্মশান থেকে উচ্ছেদের ঘটনা ঘটে ২৬ টি, দেশ ত্যাগের হুমকী দেওয়া হয়৩৪ জনকে, গ্রামছাড়া করা হয় ৬০টি পরিবারকে, জোরপূর্বক ধর্মান্তকরণ করা হয় ৭ জনকে, মহানবী (স:) কটূক্তির মিথ্যা অভিযোগে আটক করা হয়েছে ৪ জনকে।

এদিকে বাংলাদেশে হিন্দুদের ওপর যে নির্মম নির্যাতনের প্রতিবাদে আজ পশ্চিম বর্ধমান জেলার দুর্গাপুর নগর বজরং দল এর পক্ষ থেকে দুর্গাপুরে মহকুমা শাসকের দফতরে মহামহিম রাষ্ট্রপতি কে উদ্দেশ্য করে স্মারকলিপি জমা দিলেন বজরং দলের নেতৃত্বরা। বিশ্ব হিন্দু পরিষদ ও বজরঙ্গ দলের পক্ষ থেকে নেতৃত্বে ছিলেন পশ্চিম বর্ধমান জেলার বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সহ সভাপতি সঞ্জয় রাম ,জেলা বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা সুশোভন দাস, বজরং দল দুর্গাপুরের সংযোজক সুরজ সাহু।

বিশ্ব হিন্দু পরিষদের জেলা সহ-সভাপতি সঞ্জয় রাম বলেন,”এটা বজরং দলের সর্বভারতীয় কার্যক্রম স্থির করা হয়েছে। যেভাবে বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দুদের উপর নিশংস ভাবে অত্যাচার করা হচ্ছে, মহিলাদের উপর ধর্ষণ করা হচ্ছে, হিন্দুদের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে, বাংলাদেশের সরকার এটার উপর কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না।তাই মহামহিম রাষ্ট্রপতির মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকার কে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য আমরা হুঁশিয়ারি জানাতে চাইছি।”

Related Articles

Back to top button
Close