কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ভালোবাসার দিনে সেনাদের রক্ত দিয়েই পুলওয়ামায় শহিদ স্মরণ বজরং দলের

রক্তিম দাশ, কলকাতা: ভালোবাসার দিন ভালেন্টটাইন ডে-তে কোনও সংঘাত নয়! এবার এই দিনটি পালন করতে অভিনব উদ্য্যেগ নিল কট্টর হিন্দুত্ববাদী সংগঠন বজরং দল। ভালোবাসার দিনে বজরং দলের সদস্যরা এবার ভারতীয় সেনা জওয়ানদের জন্য রক্তদান করে দেশকে ভালোবাসার শপথ নিতে চান কারণ ওই দিনটিতেই কাশ্মীরের পুলওয়ামায় গত বছর জঙ্গিদের অতর্কিত আক্রমণে চল্লিশের অধিক সেনা হওয়ান শহিদ হয়েছিলেন।

বেশ কয়েকবছর ধরেই বাংলার বাইরে বেশ কয়েকটি রাজ্যে কট্টর হিন্দু সংগঠনগুলির একাংশের পক্ষ থেকে ভালেন্টটাইন ডে-কে পাশ্চাত্য সংস্কৃতি বলে বিরোধিতা করা হচ্ছিল। শুধু তাই নয় এদিনটিকে প্রেমিক যুগলদের ধরে হেনস্থা করার অভিযোগ উঠেছিল এসব সংগঠনগুলির বিরুদ্ধে। কিন্তু এবার এসবের বাইরে বের হয়ে সংঘাতের পথে না হেঁটে ভালোবাসা দিবসে রক্তদানের মধ্যে নতুন সংজ্ঞা খুঁজছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের শাখা সংগঠন বজরং দল।

আরও পড়ুন: নিয়ম লঙ্ঘন, ত্রিপুরায় ১৮টি ওষুধের দোকানের লাইসেন্স সাময়িক বাতিল

ভালেন্টটাইন ডে-তে শুধু শহিদ সেনা সদস্যদের জন্য রক্তদান নয়, রাজ্যের ৩৩টা জেলার মধ্যে ২২ টি জেলায় বজরং দলের পক্ষ থেকে দিনটির স্মরণে দুঃস্থ ছাত্র-ছাত্রীদের বই-খাতা দান এবং গরীব মানুষদের বস্ত্রদানের উদ্যোগ নিয়েছেন তাঁরা এমনটাই জানিয়েছেন সংস্থার দক্ষিণবঙ্গের মিলন প্রমুখ সুমন কর্মকার।
সুমন কর্মকার বলেন, ‘পুলওয়ামার হামলা কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা থাকাকালীন শেষ বড় ঘটনা। ৪০ জনের বেশি সেনা সদস্য সেদিন প্রাণ দিয়েছিলেন দেশের জন্য। এই দিনটি সারা বিশ্বের ভালোবাসার দিবস বলে পালন করা হয়। আমাদের দেশেও হচ্ছে বেশ কয়েকবছর ধরে। এ্র বিরোধিতা না করে আমরা দিনটিকে দেশের কাজে লাগাতে চাই সেনাদের জন্য রক্তদান করে।’

আরও পড়ুন: দিল্লি জয়ের জন্য কেজরিওয়ালকে শুভেচ্ছা বার্তা প্রধানমন্ত্রীর

সুমনবাবু বলেন,‘ কলকাতার যাদবপুরের বাঘাযতীন হাসপাতালের পাশে আমরা রক্তদান শিবিরটি করব ভারতীয় সেনা বাহিনীর সহযোগিতায়। রক্তদান শিবিরটি পরিচালনা করবে আলিপুর কমান্ড হাসপাতালের সেনা সদস্যরা। বজরং দলের শতাধিক কর্মী রক্তদান করবেন এদিন। এই শিবিরের উদ্বোধন করবেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদের আন্দামানের সংগঠন সম্পাদক বুবাই নস্কর এবং ভিএইচপির দক্ষিণবঙ্গের সভাপতি দেবাশিস চট্টোপাধ্যায়।’

এর আগে প্রতিবছরই বজরং দলের পক্ষ থেকে রাম মন্দির আন্দোলন করতে গিয়ে প্রাণ দেওয়া করসেবকদের স্মরণে ২ নভেম্বর রক্তদান শিবির করত বজরং দল। রাম মন্দিরে পর্ব এখন আর নেই তাই পুলওয়ামা দিবসে রক্তদানের আয়োজন করে প্রকৃত ভালোবাসার দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চাই বজরং দল-এমনটাই দাবি করেছেন সুমনবাবু।

Related Articles

Back to top button
Close