fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

প্রতীক্ষার অবসান, দর্শনার্থীদের জন্য খুলছে তমলুকের ঐতিহ্যবাহী বর্গভীমা মন্দির

মিলন পণ্ডা, তমলুক (পূর্ব মেদিনীপুর): দীর্ঘ প্রতীক্ষার পরই অবশেষে শনিবার দর্শনার্থীদের খুলে দেওয়া হবে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তমলুকে ঐতিহ্যবাহী বর্গভীমা মন্দির।৫১টি সতীপীঠের অন্যতম পীঠ হল তমলুকের বর্গভীমা মন্দির।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে প্রায় তিন মাস আগে থেকেই তমলুকের এই প্রাচীন মন্দির দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল।শুক্রবার ভোর থেকে মন্দির খোলার আগে দেবীর মহাস্নান অনুষ্ঠিত হয়। দিনভর চলে ভক্তদের মঙ্গলকামনায় বিশেষ মহাযজ্ঞ। শনিবার থেকে দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হবে বর্গভীমা মন্দিরটি। মন্দির খোলা হলেও দর্শনার্থীদের জন্য কিছু বিধিনিষেধ রাখা হয়েছে। লকডাউন কিছুটা শিথিল হওয়া সরকারি নির্দেশ পাওয়ার পর মন্দির কমিটির আলোচনায় মাধ্যমে খোলার সিন্ধান্ত গ্রহণ করে মন্দির কর্তৃপক্ষ।

এই মুহূর্তে ভক্তরা যজ্ঞমন্দির, যজ্ঞমোহন ও মূল মাতৃ মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন না। নাট মন্দির থেকেই দেবীকে দর্শন ও পুজো দিতে পারবেন। সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে মন্দিরের প্রবেশপথে রাখা হয়েছে বিশেষ স্যানিটাইজেশন ব্যাবস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও প্রবেশ এবং বাহিরের জন্য দুটি পৃথক গেট করা হয়েছে। মন্দির কমিটির সিদ্ধান্ত মত প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বেলা ১২টা ও বিকেল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে ঐতিহ্যবাহী তমলুকের বর্গভীমা মন্দির। তবে এই মুহূর্তে ভক্তদের ভোগ ও পুষ্পাঞ্জলি দেওয়ার ব্যবস্থা আপাতত বন্ধ থাকছে।সব রকমের দর্শনার্থীরা সরকারি নির্দেশ মান্য করেন তা কড়া নজর রাখছেন মন্দির কমিটি।

মন্দির পরিচালনা কমিটির সম্পাদক শিবাজী অধিকারী বলেন, সরকারি নির্দেশের পরও আমরা প্রস্তুতির জন্য এতদিন মন্দির খুলিনি। আমরা শনিবার থেকে দর্শনার্থীদের মন্দির খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মন্দিরে ভক্তরা যাতে সামাজিক দূরত্ব মেনে মন্দিরে প্রবেশ করেন সেজন্য প্রবেশ পথেই আমাদের লোক থাকছে। এরপর মূল গেটের কাছে স্যানিটাইজ করার জন্য ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এই মুহূর্তে ভক্তদের দেবীর কাছে দুপুরের ভোগ দেওয়া চালু হচ্ছে না।

Related Articles

Back to top button
Close