fbpx
অফবিটপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মনের ইচ্ছা শক্তির কাছে হার মানল শারীরিক প্রতিবন্ধকতা

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: অদম্য ইচ্ছাশক্তির কাছে হার মেনেছে শারীরিক প্রতিবন্ধকতা। উচ্চতা মাত্র দু’ফুট, সোজা হয়ে দাঁড়ানোর ক্ষমতা নেই। শুয়ে শুয়ে লেখাপড়া শিখে বড় হওয়ার তীব্র বাসনা। এই আশা আকাঙ্ক্ষা নিয়ে এবার মাধ্যমিক পরীক্ষা দিচ্ছে বামন পুকুর এম এম এস হাই স্কুলের পরীক্ষার্থী মনিরা খাতুন বয়স (১৬)। পরীক্ষা কেন্দ্রে বেঞ্চের ওপর শুয়ে শুয়ে মাধ্যমিক পরীক্ষা দিলেন তিনি।

বসিরহাট মহকুমার মিনাখাঁ ব্লকের কুমারজোল গ্রাম পঞ্চায়েতের মালিয়াড়ি গ্রামে মনিরার বাড়ি। একমাত্র ভাই আশিকুল মোল্লা সেও শারীরিক প্রতিবন্ধী, পঞ্চম শ্রেণীতে পড়ে। বাবা মোক্তার আলী মোল্লা পেশায় ভ্যানচালক। জন্ম থেকে একমাত্র মেয়ে শারীরিক প্রতিবন্ধী। শুয়ে জীবনের বাঁচার লড়াই। একদিকে শিক্ষার আলো, অন্যদিকে চাকরি পেয়ে পরিবারের পাশে দাঁড়ানো সবমিলিয়ে অদম্য ইচ্ছা শক্তি। সব প্রতিকূলতা ও প্রতিবন্ধকতাকে হার মানিয়ে মাধ্যমিক পরীক্ষা দিচ্ছে।

আরও পড়ুন: ৫ বছরের বাচ্চা জন্য ‘বাল আধার’ কার্ড বাধ্যতামূলক, নির্দেশ কেন্দ্রের

তাঁর লক্ষ্য জীবন সংগ্রামে চাকরি পেয়ে পরিবারের পাশে দাঁড়ানো। সবমিলিয়ে অদম্য ইচ্ছা শক্তি। ছোট থেকে গ্রামে বাড়ির মধ্যে খোলা জানলা দিয়ে খোলা আকাশে দিকে তাকিয়ে আর পাঁচটা মানুষের মতো বাঁচার লড়াই সংগ্রাম। কঠিন লড়াইকে হার মানিয়ে লেখাপড়া শিখে পাশ করে, ভবিষ্যতে চাকরি পেয়ে পরিবারের পাশে দাঁড়াতে চায়। নুন আনতে পান্তা ফুরায় যে হতদরিদ্র পরিবারের সেখান থেকেই দু’ফুটের মনিরা এবছর বাড়ি থেকে মায়ের সঙ্গে ভ্যান রিজার্ভ করে ভ্যানের উপর শুয়ে শরীরটাকে টেনে নিয়ে মনের জোরে পরীক্ষাকেন্দ্রে আসছে। তাকে আলাদা করে বেঞ্চ ওপরে শুয়ে পরীক্ষা দেয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।

Related Articles

Back to top button
Close