fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রণক্ষেত্র পাঁশকুড়া করোনা হাসপাতাল, চিকিৎসককে মারধর থেকে হাসপাতাল ভাঙচুরের অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

মিলন পণ্ডা, পাঁশকুড়া (পূর্ব মেদিনীপুর): রোগী ভর্তি করাকে কেন্দ্র করে করোনা হাসপাতালে রণক্ষেত্র চেহারা নিল। চিকিৎসকের মারধর ও হাসপাতাল ভাঙচুরের অভিযোগ উঠল রোগী বন্ধু বান্ধবের বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয় স্বাস্থ্যকর্মীকে হেনস্থা করে বলে অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পাঁশকুড়া বড়মা করোনা হাসপাতালে। ঘটনাটি ঘিরে গোটা এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। অবশেষে কলকাতার চারজনকে আটক করে পুলিশ।

সূত্রের খবর, কলকাতা থেকে কয়েকজন যুবতী সহ ১২ জন পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় পাঁশকুড়াতে আসেন। এরপর তারা পাঁশকুড়া একটি হোটেলে ওঠেন। তারপরে ওই হোটেলে যুবতী সহ বেশ কয়েকজন মাদক সেবন করে বলে অভিযোগ। রাত্রি ১ টা নাগাদ একজন যুবতী অসুস্থ হয়ে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেন। তখনই ওই যুবতীকে নিয়ে ছোটাছুটি শুরু করেন বন্ধু-বান্ধবেরা। দ্রুত গাড়িতে করে পাঁশকুড়া করোনা হাসপাতালে নিয়ে চলে আসেন বন্ধুরা।

অসুস্থ যুবতী ও তার বন্ধু বান্ধবীদের হাসপাতালে ঢুকতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দেয় হাসপাতাল নিরাপত্তারক্ষী ও সিভিক ভলেন্টিয়ার। আরও জানিয়ে দেয় এই হাসপাতালে যুবতী চিকিৎসা হবে না। করোনা পজিটিভ ছাড়া এখানে অন্য কোনও রোগীর চিকিৎসা হয় না। উওেজিত অবস্থায় নিরাপত্তারক্ষী ও সিভিক ভলেন্টিয়ারকে মারধর করে যুবতীকে নিয়ে সোজা পাঁশকুড়া করোনা হাসপাতালের আইসোলেশনে ঢুকে পড়ে কয়েকজন। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়ে দেয় জানিয়ে দেন এখানে এই যুবতীর চিকিৎসা হবে না। খবর দেওয়া হয় পাঁশকুড়া থানার পুলিশকে। দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পাঁশকুড়া থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। তখনই চিকিৎসক মারধর ও স্বাস্থ্যকর্মীদের হেনস্থা করে বেশ কয়েকজন যুবক বলে অভিযোগ। পাশাপাশি হাসপাতালে ভাঙচুর চালায় বেশ কয়েকজন যুবক বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুন:নমাজ সেরে বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনায় মৃত ৩

পুলিশ বাইরে থাকা বেশ কয়েকজন কয়েকজন যুবককে আটক করে। ঘটনার পর আরও রণক্ষেত্র চেহারা নয় পাঁশকুড়া করোনা হাসপাতাল। ভেতরে থাকা বেশ কয়েকজন যুবক হাসপাতালে ভাঙচুর চালায় বলে অভিযোগ। সকাল থেকে বেরিয়ে এলে চারজন আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পাশাপাশি অসুস্থ সংজ্ঞাহীন যুবতীকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে পক্ষ থেকে পাঁশকুড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ পুলিশ চারজন যুবককে গ্রেফতার করে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close