fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

উচ্চ-মাধ্যমিকে নজরকাড়া ফল, অভাবী- মেধাবী দুই বোনের পাশে বিডিও ও পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ

অমিতাভ মণ্ডল, ডায়মন্ড হারবার: অভাবী-‌মেধাবী দুই বোনের পাশে দাঁড়াল প্রশাসন। ডায়মন্ড হারবারের ষাটমনিষার বাসিন্দা দুই বোন রাসনা খাতুন ও সুহানা খাতুন। রাসনা এবারের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় ৪৮২ নম্বর পেয়েছে। তার প্রাপ্ত নম্বর ৯৬ শতাংশের বেশী। বোন সুহানা মাধ্যমিকে পেয়েছে ৮০ শতাংশের বেশী নম্বর। দুই বোন পড়াশোনায় মেধাবী হলেও ভবিষ্যত শিক্ষা নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়। কারণ ওদের বাবা ওমরমিস মণ্ডল পেশায় দর্জি। পরিবারে ৩ মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়ে টানাটানির সংসার। টানা লকডাউনের জেরে কাজও বন্ধ। সম্প্রতি আমফান ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয় টালির ছাউনি দেওয়া বাড়িটার। এই অবস্থায় কলেজে রাসনার কলেজে ভর্তি হওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়।

স্থানীয় স্কুল শিক্ষক মইদুল ইসলামের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারেন ডায়মন্ড হারবার-‌১ নম্বর ব্লকের বিডিও মিলনতীর্থ সামন্ত। তিনি সব শোনার পর দুই বোনের উচ্চ শিক্ষার সমস্ত ভার নেওয়ার আশ্বাস দেন। শুক্রবার ষাটমনিসা গ্রামে যান বিডিও ও পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ গৌতম অধিকারী। ছাত্রীদের বাড়িতে গিয়ে পুষ্পস্তবক দিয়ে সংবর্ধিত করেন। পাশাপাশি ১০ হাজার টাকা আর্থিক উপহার দেওয়া হয়। পাশাপাশি কলেজে ভর্তি ও স্কুলে ভর্তির জন্য সমস্তরকম সহযোগিতার আশ্বাস দেন তাঁরা।

প্রশাসনিক আশ্বাস পেয়ে দুই বোনের মুখে হাসি ফুটেছে। রাসনা যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরাজী নিয়ে পড়াশোনা করতে চায়। আগামী দিনে আইএএস বা ডব্লুবিসিএস অফিসার হওয়ার ইচ্ছে আছে। ছোট বোন কম্পিউটার নিয়ে পড়াশোনা করতে চায়। কিন্তু বাড়িতে নেই কোন কম্পিউটার। এমনকি নেই কোন অ্যানড্রয়েড ফোন। ব্যক্তি বা কোন সংস্থার সাহায্য চাইছে অভাবী পরিবার।

Related Articles

Back to top button
Close