fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আমফানের ক্ষতিপূরণ নয়ছয়ের অভিযোগের প্রধানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের

মিলন পণ্ডা, কোলাঘাট: আমফানে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের অর্থ নয় ছয়়ের  অভিযোগ তুলে গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখালেন গ্রামবাসীরা। এই ঘটনার পর গোটা এলাকায় ব্যাপক উওেজনা ছড়িয়ে পড়ে। যার ফলে তৃণমূলের গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানকে পরিদর্শনের না গিয়ে ফিরে আসতে হয়। ঘটনাটি ঘটছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কোলাঘাট ব্লকের খন্যাডিহি গ্রাম পঞ্চায়েতের পূর্ব সাওড়াবেড়িয়া গ্রামে।এই ঘটনার রাজনৈতিক

জানাগেছে বৃহস্পতিবার সকালে খন্যাডিহি গ্রাম পঞ্চায়েতে পূর্ব সাওড়াবেড়িয়া গ্রামে আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ি পরিদর্শনে আসেন পঞ্চায়েতের প্রধান সুপ্রিয়া পাঁজা,একজিকিউটিভ সহ অন্যান্য তৃনমুলের সদস্যরা। এদের দেখে গ্রামের বাসিন্দারা সোচ্চার হয়ে উঠেন। দুনীতি অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন গ্রামবাসীরা। আমফান প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তরা বঞ্চিত হচ্ছে। ক্ষতিপূরন নিয়ে একাধিক কারচুপি করে স্বজনপোষন চলছে। ত্রান নিয়ে একাধিক দলবাজি চলছে। শুধু তাই প্রধান মন্ত্রী আবাস যোজনার বাড়ি নিয়ে একাধিক কারচুপি চলছে বলে গ্রামবাসীদের অভিযোগ। শুধু তাই নয় গ্রামবাসীরা আরও অভিযোগ বলেন তৃনমুল নেতারা রেশন কার্ড ও একশো দিনের কাজ নিয়ে দূনীতি নিয়ে একগুচ্ছ ক্ষোপ উগড়ে দেন।

পঞ্চায়েতের প্রধান সুপ্রিয়া পাঁজা বলেন ঘটনার সততার কথা স্বীকার করে নেন। এদিন সকালে এলাকায় আমফানের ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়ি পরিদর্শনে গিয়েছিলাম। সেখানকার কিছু বিজেপি ও সিপিএম সমর্থকরা পরিদর্শনে যেতে বাধা দেয় এবং অশ্লীল কটূক্তি করতে থাকে। সুপ্রিয়াদেবী আরও বলেন দল দেখে ত্রান ও ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের কথা পুরোপুরি অস্বীকার করেন। প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের দেখতে গ্রামে গিয়েছিলাম।অশ্লীল কটূক্তি ও বিক্ষোভের কারনে গ্রাম পরিদর্শন করে ফিরে আসতে হল।

এবিষব তমলুক সাংগঠনিক জেলার বিজেপির সভাপতি নবারুন নায়ক বলেন তৃনমুল নেতারা বেরোলে বাসিন্দারা বিক্ষোভের মুখে পড়তে হবে। প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ ত্রান ও ক্ষতিপুরন পাচ্ছেন না। আমফান ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ির ক্ষতিপুরন নিয়ে রাজনীতি করছে তৃণমূলের প্রধান।এজন্যই সাধারণ মানুষ তৃনমুলের প্রধানকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে।

Related Articles

Back to top button
Close